নোয়াখালীতে অপহরণের ১৩ দিন পর স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ 

প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ , জুন ২২, ২০২৪

ইফতেখাইরুল আলম, নিজস্ব প্রতিবেদক:
চাটখিল উপজেলায় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের ১৩ দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় মো. রিফাত (২২)নামে একজনকে চাটখিল মডেল থানা পুলিশ গ্রেপ্তারের পর আসামিকে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে।পুলিশ জানায়,চাটখিল পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের মো.নুর নবীর ছেলে মো.রিফাত হোসেন।

অপহরণ কৃত স্কুলছাত্রী চাটখিল উপজেলার ভীমপুর বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।প্রতিদিন বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে প্রায়ই রিফাত হোসেন তাকে বিভিন্ন ভাবে আজে বাজে মন্তব্য করতো।এক পর্যায়ে অপহরণকারী গত ৮ই জুন সকালে  স্কুলে যাওয়ার সময় জোর পূর্বক শিক্ষার্থীকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে অজ্ঞাত স্থানে পালিয়ে যায়।

শিক্ষার্থীর পরিবার বিষয়টি  না জানা সত্ত্বে তারা অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে।পরে  গত ১৬ই জুন শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে চাটখিল মডেল  থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।পরে চাটখিল থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে অপহরণ কৃত স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে  এবং অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার বাদী মো.জয়নাল আবেদীন এ প্রতিবেদককে বলেন,আমার মেয়েকে স্কুল ও বাড়ী থেকে একাধিকবার তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেছে রিফাত সহ তার সহযোগীরা।তখন আমি বিষয়টি ভালো ভাবে বুঝতে না পারায়।আমার মেয়েকে স্কুলে যাওয়ার সময় পথে মধ্যে সিএনজি যোগে তাকে অপহরণ করে পালিয়ে গিয়ে।

পরবর্তীতে আমাকে অপহরণ কারীরা বিভিন্নভাবে চাপ ও হুমকি দুমকি দিচ্ছে মামলা তুলে ফেলার জন্য।মামলা না তুললে তারা আমার মেয়েকে হত্যা করে লাশ ঘুম করে ফেলবে বলেও আমাকে হুমকি দেওয়া হয়েছে।এ ঘটনার পর থেকে আমি ২৪ ঘন্টা আতংকে দিন কাটাচ্ছি।তাই আপনাদের কাছ আমার অনুরোধ আপনাদের সংবাদ ছাপানোর মাধ্যমে পুলিশ যেন

এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকা বাকি আসামীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা নিশ্চিত করা।আমার মতো আর কেউ যেন মেয়ে নিয়ে ভুক্তভুগী না হয়।

অপহরণের বিষয়টি জানতে  চাটখিল থানার (ওসি)মুহাম্মদ ইমদাদুল হককে জিজ্ঞেসা করা হলে তিনি বলেন,মামলা দায়েরের পর তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে গত ২০ই জুন অপহরণ কৃত ভিকটিমকে উদ্ধার হয়েছে এবং এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকা অপহরণকারী একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।অপরাপর আসামিরা পলাতক রয়েছে।পুলিশ তাদের গ্রেপতারের চেষ্টা করছেন।অপহরণ কৃত স্কুলছাত্রী আদালতে হাজির হয়ে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে অপহরণকারীকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে এবং এ ঘটনা সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading