ফরিদপুরে করোনায় একদিনে ১১৫ জন আক্রান্ত

প্রকাশিত: ২:২৪ অপরাহ্ণ , জুলাই ৪, ২০২০

ফরিদপুরে ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আর এভাবেই প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্তের নতুন নতুন রেকর্ড করে চলেছে জেলাতে। গেল ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে ১১৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আর সদর উপজেলায় সর্বোচ্চ ৭৪জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ পিসিআর ল্যাব সূত্র মতে, আজ শুক্রবার পিসিআর ল্যাবে মোট ৩৭৬টি করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১৫৩ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে এবং ২২০ নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে আর তিনটি রিপোর্ট ইনভেলিড এসেছে।

আজ ১৫৩ জনের মধ্যে ৯টি ফলোআপসহ ১২৪জন ফরিদপুর জেলার আর বাকি ২৯ জন গোপালগঞ্জসহ অন্যান্য জেলার।

আজ ফরিদপুরে ১১৫ জনের মধ্যে ফরিদপুর সদর উপজেলার ৭৪ জন, নগরকান্দা উপজেলার তিনজন, চরভদ্রাসন উপজেলার চারজন, সদরপুর উপজেলায় একজন, ভাঙ্গা উপজেলার ১৬জন, বোয়লমারী উপজেলার ১০জন এবং আলফাডাঙ্গা উপজেলায় তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

ফরিদপুর জেলায় এ পর্যন্ত মোট ২৩২৯জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৫৪২জন এবং মোট মৃত্যুবরণ করেছেন ২৫ জন।

ফরিদপুর সদর উপজেলায় আজ ৭৪জন নতুন আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন,দক্ষিণআলীপুরের জুবায়ের আলম, সদরের দিপ্তি রানী পাল, দক্ষিণ ঝিলটুলীর গোলাম মোস্তফা, মাসুদ হোসেন, নাদিরা বেগম, কানাইপুরের আবু বকর সিদ্দিকী, আনোয়ারা, ইসলামী ব্যাংকের রেজাউল করিম, হাজরা তলার সোয়েব রেজা, দয়ারামপুরের মোহাম্মদ আলী, আলীপুরের আফরোজ খান, রনিয়া রশিদ, ফারজানা সামস্, মজিবুর রহমান, গোয়ালচামটের মোস্তফা কামাল, স্বরস্বতী,রেজা মীর, বিকাশ সাহা, ঝিলটুলীর লিমন, শিমু, অলিউর রহমান, ডিএসবির শাহারিয়ার, সদরের রেবা আক্তার, রুপালী, কমলাপুরের কাজল কুমার শিকদার, ঝিলটুলীর সুফল, ব্রাহ্মণকান্দির মিজানুর রহমান, পাকিস্তান পাড়ার তানিয়া, রুম্পা, তাহমিনা, চরকমলাপুরের নাইমা আক্তার সখি, পুলিশ লাইনের আসাদ, কমলাপুরের আয়েশা বেগম, দক্ষিণ আলিপুরের হিমেল মজুমদার, লক্ষ্মীপুরের মামুন, তাম্বুলখানার হোসনে আরা, টেপাখোলার সবুর মুন্সি, মেডিকেলের ডা.নাসির উদ্দিন আহমেদ, কানাইপুরের নীতু সাহা, শিপ্রা সাহা, মায়া রানী সাহা, জিত সাহা, নিরঞ্জন সাহা, অমিত সাহা, নয়ন, অসিত কুমার সাহা, লিটন সাহা, নার্স ইন্সটিউটের কাজি পিনু, শাহারিয়ার হোসেন, নুরুল ইসলাম কোতোয়ালির শামীমা আক্তার, পূর্বখাবাসপুরের রমজান আলী, কাফুরার গালিব হোসেন,মঙ্গল ফকির, নুরজাহান, মামুদপুরের আকবর শেখ, গোয়ালচামটের পরিতোষ কুমার, পুলিশ লাইনের শেখ সাকিব, আবু তালেব, আক্কাস আলী, মিশকত, সদরের ফরহাদ ফকির, অরুপ কুমার বাগচি, ঝিলটুলীর শামসুন নাহার, দেওড়ারর সেলিনা আক্তার, কমলাপুরের মোহাম্মদ আলী খান, পূর্বখাবাসপুরের জয়ন্ত রানী ঘোষ, রঘুনন্দনপুরের পলাশ কুমার দাস, র‌্যাবের মাসুদুর রহমান, শোভারামপুরের সাইফুল ইসলাম, খাবাসপুরের মোস্তাফিজুর রহমান, আলিপুরের নাজমা বেগম করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এদিকে জেলার অন্যান্য উপজেলায় নতুন আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন, নগরকান্দা উপজেলার পরেশ আলী, অনিল ব্যানার্জী মোফাজ্জেল হোসেন। বোয়ালমারী উপজেলার ওহাব মুন্সি, জাকির হোসেন, আমজাদ হোসেন, ইশরত আলী, কাজি ওহিদুজ্জামান, শুকেশ সাহা এবং সেফালী।

আলফাডাঙ্গা উপজেলার খায়রুল আলম, মাহমুদ বিশ্বাস, জেসমিন, মধুখালী উপজেলার আবির এবং আবুল কাশেম। ভাঙ্গা উপজেলার শফিকুল্লাহ, সালাম, সুমি, পিয়ারা বেগম, শাহানা, রাসেল, জান্নাতুল, উত্তম সাহা, বাবুল খান, বিথি সাহা, আশা, প্রিয়া, রেখা, অনাদি রমজান মজুমদার, হাদেম ব্যাপারী ও কবিতা,

চরভদ্রাসন উপজেলার আনোয়ার হোসেন,শহিদুল ইসলাম, সেকেন্দার, রশিদ প্রামানিক। সদরপুর উপজেলার মিরাজুল ইসলাম ও সালথা উপজেলার শিরিন সিদ্দিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।