কবিরহাটে পিতাকে পিটিয়ে হত্যা, মেয়েসহ গ্রেপ্তার-৩

প্রকাশিত: ৮:০৭ অপরাহ্ণ , মে ১১, ২০২২

ইফতেখাইরুল আলম,নোয়াখালী

নোয়াখালী কবিরহাট উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের উত্তর সুন্দলপুর গ্রামে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে (৬০) বছরের বৃদ্ধ মহিন উদ্দিন মিয়াকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মেয়েসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ১১ ই মে বুধবার বেলা সাড়ে ১২টায় নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো.শহীদুল ইসলাম এর সভাকক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য নিশ্চিত করেন তিনি।

আটককৃতরা হলেন- নিহত বৃদ্ধের মেয়ে উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের উত্তর সুন্দলপুর গ্রামের মুন্সি মিয়ার বাড়ির শাহিনা আক্তার (৩৭) ও তার স্বামী মো.নুরনবী ওরফে সুমন (৪০) এবং ছেলে মো.ইউছুফ ওরফে শামীম (১৮)।

আজ ভোরে গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর সদর থানার সালনা এলাকা থেকে কবিরহাট থানার পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ সুপার মো.শহীদুল ইসলাম আরও জানান, গত ৩০ শে এপ্রিল সন্ধ্যা ৬টার দিকে নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের উত্তর সুন্দলপুর গ্রামে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে বৃদ্ধ পিতা মহিন উদ্দিন কে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার মেয়ে এবং জামাই ও নাতিদের বিরুদ্ধে।

নিহত মহিন উদ্দিন উপজেলার উত্তর সুন্দলপুর গ্রামের মৃত মোস্তফা মিয়ার ছেলে। এ ঘটনার পরের দিন সকালে নিহতের আরেক মেয়ে কবিরহাট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামি করা হয় নুর নবী (৪০), নুর নবীর স্ত্রী শাহিনা আক্তার (৩৭) ও তাঁদের ছেলে মো.ইউছুফ ওরফে শামীমকে (১৮)। এছাড়া মামলায় নুর নবীর আরেক ছেলেকেও আসামি করা হয়। নুর নবী তাঁর পরিবার নিয়ে শ্বশুরবাড়িতেই বসবাস করতেন।

বিগত কয়েকমাস আগে নিহত মহিন উদ্দিন তার ঘরজামাই নুর নবীর কাছে কিছু সম্পত্তি বিক্রি করলে,ঐ সম্পত্তি বুঝিয়ে দেওয়া নিয়ে নুর নবীর ও তার ছেলেদের সঙ্গে মহিন উদ্দিনের কথা কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায়ে নুর নবী ও তাঁর ছেলেরা মহিন উদ্দিনকে বেদম মারধর করলে স্থানীয়রা ঘটনাস্থল হতে গুরুতর আহত অবস্থায় মহিন উদ্দিনকে তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ধার করে কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে,কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেন।এ ঘটনার পর থেকে হত্যা কারীরা পলাতক ছিলেন।