নোয়াখালীতে আন্তর্জাতিক পরিযায়ী পাখি দিবস পালিত

প্রকাশিত: ৭:১৮ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ৮, ২০২২

ইফতেখাইরুল আলম(নোয়াখালী) কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশের মতো নোয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত ৮ ই অক্টোবর শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও ১ টি শালিক ও ২ টি ঘুঘু পাখি অবমুক্ত করণের মধ্য দিয়ে উপকূলীয় বন বিভাগের গেস্ট হল রুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নোয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষণ মো.কাজী তারিকুর রহমান এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন,নোয়াখালী অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক)ইসরাত সাদমীন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার মো.মেহেরাব হোসাইন, শুভেচ্ছা বক্তব্য করেন,সুবর্নচর উপজেলা বন কর্মকর্তা মো:মোশারফ হোসেন হোসেন,সঞ্চালনায় ছিলেন,উপকূলীয় বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা এ এস এম মহি উদ্দিন চৌধুরী, অপরদিকে বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস ২০২২ইং আন্তর্জাতিক ভাবে এক বছরের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করার লক্ষে “ম্লান করলে রাতের আলো,পাখিরা থাকবে আরো ভালো”এ স্লোগানকে সামনে রেখে,নোয়াখালী হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম হোসেন এর সভাপতিত্বে,উপস্থিতি ছিলেন,নোয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা মো.ফরিদ মিয়া,হাতিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, মো.কেফায়েত উল্যাহ,১১ নং নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান,মো.দিনাজ উদ্দিন, এ সময় মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,নোয়াখালী বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ড.মোহাম্মদ মহিনুজ্জামান সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও শিক্ষক,ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত প্রতিনিধিগন প্রমুখ। প্রধান বক্তা ইসরাত সাদমীন তার বক্তব্যে”ম্নান করলে রাতের আলো,পাখিরা থাকে আরো ভালো” স্লোগানকে সামনে রেখে তিনি বাংলাদেশের পরিযায়ী অসাধু পাখি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য করে বলেন,পাড়া মহল্লার শহর অঞ্চলে য সব অসাধু অবৈধ পাখি ব্যবসায়ী রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ বন্য-প্রাণী( সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা)আইন-২০১২ এর ১নং ও ২নং তফসিলে ৬৫০ প্রজাতির পাখি সংরক্ষণ প্রজাতি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এ ছাড়া বন্যপ্রাণী(সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা)আইন-২০১২ এর ধারা ৩৮(১)অনুযায়ী,কোন ব্যক্তি পরিযায়ী পাখি শিকার বা হত্যা করলে তাকে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।

Loading