একই দিনে তিনবার টিকা দেওয়ার অভিযোগ!

প্রকাশিত: ১:০৪ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ১৪, ২০২২

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার হাঁটপুকুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র মো. ইয়াছিন আরাফাতকে একইদিনে তিনবার করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অসুস্থ হয়ে পড়া ইয়াছিনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার তদন্তে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী হাঁটপুকুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ও ২নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা।

ইয়াছিনের দাদা আবুল কালাম ভান্ডারী জানান, বিদ্যালয় থেকে টিকা দেওয়ার নোটিশে অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যায় ইয়াছিন। কর্মীরা প্রথমে তাদের সাথে থাকা টিকার রেজিস্ট্রেশন কার্ডটির একটি অংশ জমা নিয়ে ইয়াছিনকে প্রথম ডোজ টিকা প্রদান করে। তারপর ইয়াছিন ওই কক্ষে অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে দাঁড়ানো ছিল। এর কিছুক্ষণ পর কোন প্রকার কাগজ ছাড়া তাকে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বার টিকা প্রদান করা হয়।

এতে তার শরীরে ব্যাথা শুরু হয়ে জ্বর আসে। পরবর্তীতে তাকে দ্রুত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোস্তাক আহমেদ বলেন, ‘‘ অভিযুক্ত টিকা প্রদান করা কর্মীকে শোকজ করা হয়েছে। ওই শিক্ষার্থীকে দুই বার টিকা দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।’’

এবিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন,‘‘ ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার কর্মসূচীর আওতায় ফাইজারের প্রথম ডোজ টিকা প্রদানের সময় ওই শিক্ষার্থীকে দুই বার টিকা দেওয়া হয়েছে বলে আমরা শুনেছি। ওই শিক্ষার্থীকে আমাদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।’’

ঘটনার তদন্তে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. তিথী আবেদকে প্রধান করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।