পালাগান ‘শেখ রাসেলের করুণ কাহিনি’

প্রকাশিত: ১২:৪৭ অপরাহ্ণ , মার্চ ১১, ২০২১

আজ ১০ মার্চ ২০২১ সন্ধ্যা ৬টায় একাডেমির জাতিয় নাট্যশালার এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজন করেছে ইসলাম উদ্দিন পালাকারের রচনা ও পরিবেশনায় পালাগান ‘শেখ রাসেলের করুণ কাহিনি’। আজ এই পালার উদ্বোধনী মঞ্চায়ন এবং পালা পরিবেশনা উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সম্মানিত মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পাঁচ সন্তানের মধ্যে সবচেয়ে ছোট শেখ রাসেল। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী, তিন পুত্র শেখ কামাল, শেখ জামাল এবং কনিষ্ঠতম পুত্র শেখ রাসেলসহ পরিবারের প্রায় সকলকেই হত্যা করা হয়েছিল। দেশের বাইরের থাকার কারণে ঘাতকদের গুলি থেকে রক্ষা পান তাঁন দুই কন্যা।

যে জাতিকে অমিত সাহসে বলীয়ান করে তুলেছিলেন বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতার মন্ত্রে করেছিলেন উজ্জীবিত, সেই জাতির কিছু উশৃঙ্খল সেনা কর্মকর্তাদের দ্বারা এমন ঘটনা সত্যিই খুব কষ্ট এবং বেদনার। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই ইসলাম উদ্দিন পালাকার রচনা করেছেন শেখ রাসেলের করুণ কাহিনি।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল তখন মাত্র চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র, ১১ বছরের শিশু। তার চোখের সামনেই একে একে হত্যা করা হয়েছিল তার বাবা, ভাইসহ অনেককেই। মায়ের কাছে গিয়ে বাঁচার আকুতি জানিয়ে হতবিহ্বল রাসেল ঘাতকদের কাছে উপহার পেয়েছিল তপ্ত বুলেট এবং স্নেহময়ী জননীর রক্তাক্ত দেহ। সব শিশুর বাসযোগ্য একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য বঙ্গবন্ধু তার জীবনের উজ্জ্বল সময়গুলো উৎসর্গ করেছেন কিন্তু দেশ স্বাধীন করে নিজেকে জীবন দিতে হলো, এমনকি শিশু পুত্রটির জীবনও রক্ষা করা গেল না।