মিথ্যা সংবাদ প্রচার ও বিভিন্ন অনিয়মের প্রতিবাদে সেনবাগ পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৩:৪১ অপরাহ্ণ , মার্চ ৯, ২০২১

আমির হোসেন লিটন,সেনবাগ প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সেনবাগে মিথ্যা সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সেনবাগ পৌরসভার মেয়র আবু জাফর টিপু। দৈনিক প্রথম ডাক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও বিভিন্ন অনিয়ম বিরুদ্ধে এ সংবাদ সন্মেলন করেন তিনি।
এছাড়াও সেনবাগ-সোনাইমুড়ি সড়কের উন্নয়ন কাজে অনিয়ম ও পল্লীবিদ্যুতের খুটি অপসারণে অনিয়মের বিরুদ্ধেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন মেয়র।
৭মার্চ (রবিবার) দুপুরে সেনবাগ পৌরসভা কার্যালয়ে আয়োজিত উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেয়র আবু জাফর টিপু।

এসময় মেয়র টিপু বলেন সেনবাগ পৌরসভাটি বিগত ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এবং অত্র পৌরসভায় আমি দ্বিতীয় নির্বাচিত মেয়র হিসেবে ৬ জুন ২০১১ সালে ১ম ও ২ জুলাই ২০১৬ সালে ২য় মেয়াদে মেয়রের দায়িত্ব নিয়ে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করে আসছি।পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে আমি যেমন সকলের সহযোগিতা পেয়েছি তেমনি আবার বিভিন্ন ভাবে বাধাগ্রস্থ ও হয়েছি।তারপর ও আমি আমার পরিষদ ও কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সহযোগিতায় এ পর্যন্ত প্রায় ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সম্পন্ন করেছি।

গত ৪/৩ /২০২১ ইং তারিখে গুরুত্বপূর্ণ শহর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বাবুপুর মাদ্রাসা সড়ক, এম এ রশিদ সড়ক , ও হাবিব উল্যা চৌধুরী সড়ক নামে ৩টি সড়ক উদ্বোধন করা হয়। এর মধ্যে ১ টি সড়ক ভূলবসত মান্নান উকিল/ আহম্মদ উল্যা সড়কের স্থলে হাবিব উল্যা চৌধুরী সড়ক হিসেবে দরপত্র আহবান করা হয়। এ অনাকাঙ্ক্ষিত ভূলকে পুঁজি করে একটি স্বার্থান্বেষী মহল গত ৫/৩ /২০২১ইং তারিখে দৈনিক প্রথম ডাক নামে একটি পত্রিকায়
সংবাদ পরিবেশন করে।আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অনিচ্ছাকৃত ভূলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি।সেনবাগ -সোনাইমুড়ি সড়কের উন্নয়ন কাজ নিয়ে মেয়র বলেন, সড়কটির সেনবাগ বাজার অংশে দুই পাশ উম্মুক্ত করে চওড়া করার শর্ত ছিল।কিন্তু কোন এক অশুভ শক্তির ইন্ধনে রাস্তাটির বাজারের দক্ষিণ প্রাণ্ত থেকে সেনবাগে হাসপাতাল পর্যন্ত সম্প্রসারণ না করেই এবং পরিস্কার না করেই নিন্মমানের বিটুমিন ও পাথর দিয়ে কাজ করছেন যা খুবই হতাশাজনক,যা বর্ষা মৌসুমের পূর্বেই বিনষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়াও পল্লী বিদ্যুতের খুটি গুলো ও এখনো রাস্তার উপরেই রয়েছে এবং খুঁটিগুলি রাস্তা থেকে ৫ ফুট দূরে স্থাপনের জন্য আমি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে চিঠিও দিয়েছি। তিনি সেনবাগ বাজারের বেশকয়েকটি দোকান উচ্ছেদের কথা উল্লেখ করে বলেন সেনবাগ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সরকারি জায়গায় দখল করে মার্কেট নির্মাণ করে ভাড়া আদায় করছে,আর সরকারি জায়গার নামে কিছু নিরিহ ব্যবসায়ীকে উচ্ছেদ করা হলো।তিনি এ দ্বৈত কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানান।
তিনি সেনবাগ বাজারের সড়ক প্রশস্তকরন সহ সেনবাগ পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এগিয়ে নিতে প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র ১ সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, প্যানেল মেয়র ২ খোরশেদ আলম,পৌরসভার সচিব জাকির উদ্দিন,কাউন্সিলর ও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, কাউন্সিলর দুলাল,আক্তার হোসেন মিন্টু, ফাতেমা আক্তার, জাহানারা বেগমসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।