১৪ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ

প্রকাশিত: ৪:৪২ অপরাহ্ণ , ডিসেম্বর ২৪, ২০২০

উত্তরবঙ্গের তথ্য প্রযুক্তির হাব হিসেবে রাজশাহীতে একত্রিশ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক।  ভেতরে আছে, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ইনকিউবেটর। একই ক্যাম্পাসে আছে, আশা জাগানিয়া জয় সিলিকন টাওয়ার। 

ডিজিটাল বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তির এই স্থাপনা নির্মিত হচ্ছে, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির তত্ত্বাবধানে। রাজধানী থেকে আড়াইশ কিলোমিটার দূরে হলেও  একটি বিশ্বমানের অবকাঠামো এটি। এর নির্মাণ কাজ শেষ হলে ১৪ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে ২০২৫ সালের মধ্যে। যা হবে কর্মসংস্থান বিকেন্দ্রীকরণে মাইলফলক।

এ ব্যাপারে ওয়ান-স্টপ সার্ভিসের প্রধান সমন্বয়কারী কল্যাণ কুমার সরকার বলেন, ‘এখানে ট্রেনিং হবে এবং ইনিকিউবেশন হবে। একদম যারা নতুন উদ্যোক্তা তাদেরকে এখানে জায়গা দেয়া হবে। এখান থেকে তারা তাদের ইনোভেশন আইডিয়া, চিন্তা চেতনাগুলো পরিস্ফুটন করতে পারবেন।’

আশা করা হচ্ছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে বড় অবদান রাখবে এই প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষিতরা।

জানতে চাইলে মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘রাজশাহীর বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে আমাদের সন্তানেরা, যারা আইটি সম্পর্কে জানে তারাই এখানে কাজ করবে।’

হাইটেক পার্কটি দেশের অগ্রযাত্রাকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নেবে জানিয়েছেন তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, ‘রাজশাহীতে একত্রিশ একর জায়গায় শেখ কামাল আইটি প্রশিক্ষণ সেন্টার স্থাপন করেছি। জয় সিলিকন টাওয়ারসহ সবগুলোর কাজ ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে। এটি বাস্তবায়ণ হলে শিক্ষার নগরী রাজশাহীর লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে।’