ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটে আসনপ্রতি লড়বেন ৫৮ শিক্ষার্থী

প্রকাশিত: ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ , জুন ১১, ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে শনিবার। বেলা ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত চলবে এ পরীক্ষা।

এবার ‘ঘ’ ইউনিটে এক হাজার ৩৩৬টি আসনের বিপরীতে মোট আবেদনকারীর সংখ্যা ৭৮ হাজার ২৯ জন। সে হিসেবে প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন ৫৮ জন শিক্ষার্থী।

পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধায় ঢাকাসহ মোট আটটি বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ঢাকার বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো—চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (ময়মনসিংহ), শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (সিলেট), বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (রংপুর)।

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটে কলা অনুষদ, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, বিজ্ঞান অনুষদ (অন্তর্ভুক্ত বিষয় : গণিত ও পরিসংখ্যান বিভাগ), জীব বিজ্ঞান অনুষদ (অন্তর্ভুক্ত বিষয় : মনোবিজ্ঞান বিভাগ), আইন অনুষদ, আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদ, সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ এবং আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত।

‘ঘ’ ইউনিটের ক্ষেত্রে বহুনির্বাচনি ও লিখিত অংশের জন্য যথাক্রমে ৬০ ও ৪০ নম্বর ধরা হয়েছে। তবে ‘খ’ ইউনিটের লিখিত অংশে সাধারণ জ্ঞান না থাকলেও এ ইউনিটের লিখিত অংশে সাধারণ জ্ঞান থেকেও প্রশ্ন থাকবে। বহুনির্বাচনি পরীক্ষায় বাংলায় ন্যূনতম ৬ নম্বর, ইংরেজিতে ন্যূনতম ৬ নম্বর, সাধারণ জ্ঞানে ন্যূনতম ১২ নম্বর পেলে উত্তীর্ণ বলে বিবেচনা করা হবে। বহুনির্বাচনি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে প্রাপ্ত নম্বরের ক্রম অনুযায়ী প্রত্যেক গ্রুপের (বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক শাখা) মোট আসন সংখ্যার কমপক্ষে পাঁচ গুণ লিখিত উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হবে। লিখিত পরীক্ষার অংশে ন্যূনতম ১২ নম্বর পেতে হবে। বহুনির্বাচনি ও লিখিত উভয় পরীক্ষা মিলিয়ে সর্বমোট পাস নম্বর ৪০।