নেএকোণার মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তি মহানায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সিদ্দিক আহমেদ এর৫ম প্রয়ান দিবস পালিত

প্রকাশিত: ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২১

নেত্রকোনা জেলার কালিয়ারা গাবরাগাতি ইউনিয়নের মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তির মহানায়ক কোম্পানি কমান্ডার আবু সিদ্দিক আহমেদ এর পঞ্চম তম প্রয়ান দিবস পালিত হয়।এ উপলক্ষে হরমোজা ফজলুল উলুম দারুস সালাম নুরানি হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার পক্ষ হতে,

আজ বাদ জোহর মিলাদ মাহফিল এর আয়োজন করা হয়। উক্ত মিলাদ মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন ,
মোঃ আইয়ুব আলী কমান্ডার বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নেত্রকোনা সদর উপজেলা ইউনিট কমান্ডার নেত্রকোনা। আরো উপস্থিত ছিলেন,
বীর মুক্তিযুদ্ধা আব্দুর রহিম, এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা
আবু আক্ কা স আহমেদ, বীরমুক্তিযোদ্ধা আক্কাস আলী যুদ্ধাহত , বীর মুক্তিযুদ্ধা সাজ্জাদুর রহমান খান পাঠান , এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মাদ্রাসার সকল ছাত্র-ছাত্রী। এ
সময় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয় । দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের পর তবারক বিতরনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয়।
মরহুম মুক্তিযুদ্ধ কোম্পানি কমান্ডার আবু সিদ্দিক আহমেদ জন্ম. (১ডিসেম্বর ১৯৪০ মৃত্যু ১৬সেপ্টেম্বর ২১৬শুক্রবার ভোর ৪.৫৫ মি) (বাড়ি নাড়িয়া পাড়া নেত্রকোনা) ;মুক্তিযুদ্ধের তিনি ৪ নং টাইগার কোম্পানি কমান্ডার ছিলেন। তিনি নেত্রকোনা হানাদার মুক্ত করার যুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন ক্যান্সারজনিত রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তার বাবা মরহুম সৈয়দ আহমদ তালুকদার ( মৃত্যু ১৯৬২ ওমা মুক্তিযোদ্ধের সংগঠক মরহুমা হরমুজান নেছা তালুকদার মৃত্যু ১৯৯২)। তাদের ৬ ভাই এর মধ্য ৪ ভাই মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন । ছোট দুই ভাই অপ্রাপ্তবয়স্ক থাকায় তারা মায়ের সাথে রং রায় বসবাস করেন। পাটগ্রামের কংস নদীর তীরে তাদের প্রথম অপারেশনে হানাদার রোদের ৭ সহযোগী কে আটক করতে সমর্থ হয়েছিলেন। দ্বিতীয় অপারেশন ঠাকুরাকোণা ব্রিজ ধ্বংসের দিন
হানাদার বাহিনী বুঝতে পারে যে এলাকায় তাড়া নেই। সে সুযোগে হানাদার বাহিনী তাদের বাড়ি সহ এলাকার প্রায় ২০ টি বাড়ি অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়। মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু রাষ্ট্র ভারত সরকার তাদের মা সহ পরিবারের সদস্যদের বসবাস উপযোগী একটি বাড়িও দিয়েছিলেন রংরাতে।।