পুলিশের স্ত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, গ্রেফতার ৪

প্রকাশিত: ৫:০০ অপরাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১

পুলিশের স্ত্রী হত্যার ঘটনায় মূল আসামিসহ ৪ জন গ্রেফতার।
মানিকগঞ্জ পৌরসভার পশ্চিম দাশড়া ১১ নাম্বার ডা. শামছুর রহমান লেন এলাকায় ফ্ল্যাট বাসায় পুলিশের স্ত্রীকে (বিলকিস) হত্যার ঘটনায় জড়িত চারজনকে গ্রেফতার করেছে সদর থানা পুলিশ।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ গোলাম আজাদ খান।

গ্রেফতাররা হলেন- রাজবাড়ী জেলার আনোয়ার হোসেনের ছেলে কবির হোসেন, জিতু সরদারের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন, বগুড়া জেলার শহিদ মণ্ডলের ছেলে শাকিল হাসান এবং রাজবাড়ী জেলার কবির হোসেনের স্ত্রী আঁখি মনি (লিপি)।

পুলিশ সুপার বলেন, বিলকিস আর আঁখি মনি একে অপরের পরিচিত ছিল।

গত ৯ সেপ্টেম্বর বিলকিসের বাড়িতে বেড়াতে আসেন আঁখি। ১০ সেপ্টেম্বর রাতে বিলকিসের ছেলে-মেয়েকে ঘুমের ওষুধ মিশ্রিত জুস খাওয়ালে তারা গুমিয়ে পড়ে।

এসময় আঁখির সহযোগিতায় রিয়াজ, শাকিল এবং কবির বিলকিসের বাসায় প্রবেশ করেন। একপর্যায়ে আড্ডার ছলে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ওই একই জুস আর চিপস বিলকিসকে খাওয়ায় তারা।
অচেতন অবস্থায় বিলকিসকে ধর্ষণ করার পরে রাত আনুমানিক ১টা থেকে ২টার দিকে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এরপর আসামিরা ঘরে থাকা দামি মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, ঘটনার পর ভিকটিমের বাবা মজেম ব্যাপারী সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। প্রথমে আসামি আঁখি মনিকে ঢাকা জেলার আশুলিয়ার কবিরপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জেলার সাটুরিয়া উপজেলার তারাসীমা অ্যাপারেলস লিমিটেডের কাছ থেকে কবিরকে, বগুড়া থেকে শাকিল ও পাবনা থেকে রিয়াজ উদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়।

তাদের কাছ থেকে খোয়া যাওয়া তিনটি মোবাইল, একটি নুপুর, স্বর্ণের পায়েল, তিনটি কানের রিং, একটি স্বর্ণের ব্রেসলেট, একটি লকেট, দুটি কানের দুল এবং নগদ পাঁচ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। আসামিদের ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।