কুসুম ফুল

প্রকাশিত: ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ , আগস্ট ২৪, ২০২১

এটি বাড়ি বা পরিবেশের শুভাবর্ধণের জন্য বাগানের কোন ফুল নয়। এ হচ্ছে একটি তেলবীজ শস্য। গ্রামের ভাষায় এর নাম ফুলবিচি । কৃষি বৈজ্ঞানিক পরিভাষায় একে বলা হয় কুসুম ফুল। এটি বাড়ি বা বাগানে চাষ হতো না। চাষ হতো কৃষি জমিতে। একসময় এর কদর ছিল বেশ। এ ফুল গাছের কান্ড,পাতা ও ফুলের কলিতে ছোট ছোট কাটা রয়েছে। ফুলের পাপড়িতে সাতটি রং বিদ্যমান রয়েছে। ফুলে হলুদ ও লাল বর্ণের অপরুপ রং আর মিষ্টি মৌ মৌ গন্ধ শুধু মানুষকেই আকৃষ্টই করে না উপকারী কীট পতঙ্গকেও আকৃষ্ট করে। এ শস্য ফুল গাছটি আড়াই থেকে সাড়ে ৩ ফুট লম্বা হয়ে থাকে। এর কান্ড ও পাতার রং গাঢ় সবুজ। ফুলের কলি সাধারণত সবুজ হয়ে উঠলেও ফুল ফোটার সাথে সাথে এর রং পাল্টে যায়। ফুলের পাপড়ি গুলো হলুদ ও লাল বর্ণই চোখে পড়ে। ফুলের কাছে গেলে আরো রং চোখে ভেসে উঠে। জমিতে এ ফুল ফুটলে লাল হলুদের অপরূপ সৌন্দর্যের অবতারণা হয়। মনে হবে এ কোন ফুল বাগানে এসেছি। এ জন্য একসময় এটি জমির বেড়া হিসেবে জমিতে লাগানো হতো। আবার অনেক কৃষক পুরো জমিতে চাষ করে এর সাথী ফসল হিসেবে ওই জমিতে একই সাথে মুশুর ,ভুট্টা কালিমটর জাতীয় ডাল শস্য চাষ করা হতো।