অটোরিক্সাওয়ালা

প্রকাশিত: ৫:২৬ অপরাহ্ণ , জুন ১৩, ২০২১

অটোরিক্সাওয়ালা

সামছুদ্দোহা ফরিদ
আমি অটোরিক্সাওয়ালা বলে!
চড় মেরেছেন মোর গালে!
অপবাদ ও দিয়েছেন মা বাবা তোলে!
আমরাও তো ভাই মানুষ, কেন যান ভুলে?
কালে কালে, কোন কালে?
কাজ ছাড়া সম্মানিত কোন জন? কোন কুলে?
আমি মানুষ, আমি নই হীন
আমি স্রষ্টার সৃষ্টি, নই কারো অধীন।
আমি যুবক,আমি সেবক,আমার আছে অবদান
দেশ গড়ায় আমি ও নিবেদিত প্রাণ।
চাকর গোলাম সেই জন, যে জন করে সেবা
সবাই সবার সেবক,এটাই চরম বাস্তবতা।
সেবক কে চাকর মনে করে, করোনা কারো হীন
জগত হবে অসুন্দর,অকৃতজ্ঞদের থাকবে ঋণ।
সেবার নীতি মাথায় তোলে, মানব সেবায় আত্মভুলে
ঝড়,বৃষ্টি,বাঁধা বিপত্তি অবজ্ঞা করে ছুটি মোরা ভুলে।ছোট বড় সব কাজ, করিতে নাহি মোর লাজ
আজ হয়ত কেহ ফকির, কাল হয়ত কেহ মহারাজ।
হাজারো পুঁথির বন্ধনে, এক পুঁথির মালা
সৃষ্টি মানে, আমি তুমি ঐকতানের মেলা।
কর যত অপমান, কর যত অসম্মান
রক্ত মাংসের শরীর মোদের একই মান।
পথের পথিককে বহন করি তার পথ
জীবন দিয়ে তাকে রক্ষাই মোদের শপথ।
রাতের আঁধারে হারাই মোরা অচেনা পথে
মনের সুখ পাই অনাবিল পৌঁছিয়ে তাকে।
জগতের মহিমা প্রকাশ বিজয়ী সৃজনশীল কর্মে
রাজা নয়,মহারাজ নয়,বিজয়ী সৈনিকের বর্মে।
তাকাই ভাই মাটির দিকে,সুউচ্চ প্রাসাদে নয়
সেখানেই মোদের প্রাণের ফসল,মাটিতেই জন্ম হয়।
ছোটর দ্বারা বৃহত্বের প্রকাশ,বড়ত্বে নয়
ছোটর মাঝেই লাভ করে, বড়ত্বের পরচয়।
সুউচ্চ নীলীমার বর্ষণ ধারা, ধরায় হয় বর্ষণ
শ্যামল সবুজ ফুলে ফলে সিক্ত ধরা মাটির চির মিলন
সব নদী মিশে যায়,বৃহৎ সাগরের পাণে
সব পানি একাকার তার কল্লোল গানে।
আমি, তুমি,সে নই মোরা আলাদা
এক আদমের সন্তান, নই কেহ শাহাজাদা।