চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন ২০২১ সম্পর্কে

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ২৬, ২০২১
মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত
রাত পোহালে ২৭ জানুয়ারি ২০২১ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচন। ১৯৯৪ সালে ৩১ জানুয়ারি প্রত্যক্ষ ভোটে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ঐ সময় ক্ষমতায় ছিল বিএনপি। মেয়র প্রার্থীরা ছিলেন- বিএনপি সমর্থিত সাইকেল প্রতীকে মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত হ্যারিকেন প্রতীকে আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, জাতীয় পার্টি সমর্থিত ছাতা প্রতীকে মাহামুদুল ইসলাম চৌধুরী, ভাষা আন্দোলনের নেতা অলি আহাদের নেতৃত্বাধীন ছয় দলীয় জোটের সমর্থিত চাকা প্রতীকে আমি (মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত), জামাত সমর্থিত কবুতর প্রতীকে আফছার উদ্দিন চৌধুরী, ইসলামী ফ্রন্ট সমর্থিত প্রার্থী মমতাজ উদ্দিন চৌধুরী, গরুর গাড়ি প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট আবদুর রহমান জাহাঙ্গীর, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ শরিফ, স্বতন্ত্র জসিম আলী প্রমুখ। ঐ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছিল। তাই সেই সময় ক্ষমতাসীন দল বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন নির্বাচিত না হয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন।
এবার যারা মেয়র পদে প্রতিদন্দ্বীতা করছেন তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী (হিরু) আমার ভ্রাতৃপ্রতিম আত্মীয়। তাছাড়াও অন্যান্য আরো অনেক আত্মীয় বিভিন্ন অবস্থান থেকে মেয়র পদে প্রতিদন্দ্বীতা করছেন। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমি বিশ্বাস করি মহান মুক্তিযুদ্ধে লক্ষ্য ছিল শোষণহীন সমাজ ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠা। আজ স্বাধীন বাংলাদেশে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় গণতন্ত্র মূর্চ্ছিতবৎ, ক্ষমতাসীনদের মুষ্ঠি নিপীড়নে আবদ্ধ। আমরা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রত্যাশা করি। যাতে মানুষ নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থী ও প্রতীকে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে। ভোটারদের সত্যিকার রায় প্রতিফলিত হয়।
কামনা করি সকলে শান্তি, শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বজায় রাখার অকৃত্রিম প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন। ভালো ও নিরাপদে থাকুন- এ প্রার্থনা করি।