স্বপ্ন পূর্ণ হওয়ার দিন আজ

প্রকাশিত: ১০:৪০ পূর্বাহ্ণ , ডিসেম্বর ১০, ২০২০

আজ ১০ ডিসেম্বর ২০২০। ইতিহাসের পাতায় দিনটি স্বর্ণের অক্ষরে লেখা থাকবে। কারণ বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুষের স্বপ্ন পূর্ণ হওয়ার দিন আজ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসি পদক্ষেপ স্বপ্নের পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হচ্ছে আজ। সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হচ্ছে ‘টু-এফ’ নামের শেষ স্প্যান। এর মধ্যে দিয়ে দৃশ্যমান হবে সেতুর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার।

ইতোমধ্যে স্প্যাটি মাওয়া কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে থেকে নির্ধারিত পিলারের কাছে পৌঁছেছে। বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ৩ হাজার ২০০ টন ওজনের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে এই স্প্যানটি নির্ধারিত পিলারের কাছে পৌঁছায়।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আবদুল কাদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এবার সেতুর দুই প্রান্ত জোড়া লাগার পালা।

তিনি আরও জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকালের দিকে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যান বসানোর কার্যক্রম শুরু করব। আর এতেই দৃশ্যমান হবে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার। ৪১তম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে এক নতুন মাইফলক রচিত হবে।

নির্বাহী প্রকৌশলী আরও বলেন, ৪১তম স্প্যান বসানো হলে সেতুর ৪২টি পিলারের ওপর সবকয়টি স্প্যান বসানো সম্পন্ন হবে। ইতোমধ্যে ৪০টি স্প্যান বসে গেছে। এতে দৃশ্যমান হয়েছে ৬ কিলোমিটার। এদিকে জাজিরা প্রান্তে আগেই ২০টি স্প্যান বসানো হয়। আর মাওয়া প্রান্তে বসানো হয়েছে ১৯টি স্প্যান। ১টি স্প্যান বসানো হয় মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের মাঝখানে।

৩ বছর ২ মাস ১০ দিনে ৪০ স্প্যান পদ্মা সেতুতে এ পর্যন্ত ৪০টি স্প্যান বসানো হয়েছে। বাকি আছে মাত্র একটি। এটি আজ বসলে সব স্প্যান বসানো সম্পন্ন হবে।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্যে দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। সে হিসাবে ৩ বছর ২ মাস ১০ দিনে বসানো হলো সেতুর সবকয়টি স্প্যান।