রামগড়ে স্বাস্হ্য সহকারীদের টানা কর্ম বিরতিতে মাঠ পর্যায়ে স্বাস্হ্যসেবা বিঘ্নিত

বাহার উদ্দিন বাহার উদ্দিন

রামগড় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮:০৬ অপরাহ্ণ , ডিসেম্বর ৩, ২০২০

স্বাস্হ্য বিভাগের স্বাস্হ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্হ্য পরিদর্শক, ও স্বাস্হ্য সহকারীদের নিয়োগ বিধি সংশোধন, ও বেতন বৈষম্য দুরীকরনে দেশব্যাপী স্বাস্হ্য সহকারীদের টানা কর্মবিরতিতে স্বাস্হ্য সেবা ব্যাহত হচ্ছে। বিশেষ করে গুরুত্বপুর্ন টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ রেখে স্বাস্হ্য সহকারীরা আন্দোলনে থাকায় শিশুরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

গত ২৬শে নভেম্বর থেকে দেশব্যাপী স্বাস্হ্য সহকারীদের নিয়োগবিধি সংসোধন,ও বেতন বৈষম্য দুরীকরনে টানা কর্মবিরতিতে নেমেছে স্বাস্হ্য সহকারীরা।

বাংলাদেশ হেলথ এ্যাসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ স্বাস্হ্য বিভাগীয় পরিদর্শক সমিতি,বাংলাদেশ স্বাস্হ্য বিভাগীয় মাঠ কর্মচারী এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ হেলথ ইন্সপেক্টর সেক্টোরাল এসোসিয়েশন দাবি আদায়ে যৌথভাবে কর্মবিরতিতে নেমেছে। ফলে মাঠ পর্যায়ে টিকাদান কর্মসূচি সহ স্বাস্হ্য সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

আজ ৩রা ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল এগারটায় রামগড় উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্স এ
গিয়ে দেখা যায় অফিস চত্বরে ব্যানার টাঙিয়ে কর্মবিরতি পালন করছে স্বাস্হ্য কর্মীরা।

দাবি বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক স্বাস্হ্য পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) মংসুইলা মারমা ও সদস্য সচিব (স্বাস্হ্য সহকারী) একরামুল হক সাংবাদিকদের জানান, আমাদের নিয়োগবিধি ও বেতন বৈষম্য দুরীকরনে সরকার প্রধান ও স্বাস্হ্য মন্ত্রীর পুর্ব ঘোষিত ঘোষনা ও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হওয়ায় স্হানীয় ও কেন্দ্রীয় ভাবে কর্মসুচিতে নেমেছি, যতক্ষণ দাবি পুরন না হবে ততক্ষণ কর্মবিরতি চলবে।

রামগড় উপজেলা স্বাস্হ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ প্রতীক সেন জানান, স্বাস্হ্য সহকারীদের কর্মবিরতিতে গুরুত্বপূর্ণ টিকাদান কর্মসুচি ব্যাহত হচ্ছে। তবে কমিউনিটি ক্লিনিক গুলোর মাধ্যমে মাঠ পয্যায়ে চিকিৎসা সেবা চালু আছে। সহসাই উচ্চ পয্যায়ে বৈঠকের মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।