সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বেত শিল্প

প্রকাশিত: ৫:৪০ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ২২, ২০২০

কামাল হোসেন ::

সমগ্র সিলেট অঞ্চল এক সময় বেতের তৈরি আসবাবপত্রের জন্য বিখ্যাত ছিল। সর্বপ্রথম সিলেটে বেত শিল্পের সূচনা ১৮৮৫ সালে। ১৯২৬ সাল পর্যন্ত সিলেটের বনাঞ্চলগুলোত প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরনের বেত পাওয়া যেত।পরবর্তীতে কালের বিবর্তনে বিভিন্ন কারণে সিলেট অঞ্চলে বেতের উৎপাদন ধীরে ধীরে কমে আসতে থাকে। বর্তমানে উৎপাদিত বেত দ্বারা যথার্থ চাহিদা পূরন না হওয়ায় বিদেশ থেকেও বেত আমদানি করা হচ্ছে। কিন্তু তাতে তুলনামূলক দাম বেশি পড়ায় এবং উৎপাদন ও বিক্রয়ের মধ্যে সামঞ্জস্য না থাকায় ব্যবসয়ীরা এই শিল্পে লোকসান দিচ্ছেন।
সিলেটে বর্তমানে গুটি কয়েক দোকানে বেতের তৈরি আসবাবসহ প্রায় ৫০ প্রকারের বেত জাতীয় পণ্য তৈরী হচ্ছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- বেতের তৈরী ম্যাগাজিন র‌্যাক, টেলিফোন চেয়ার, সোফা সেট, বেড সেট, স্যুজ রেক, ট্রলি, টেবিল, শেলফ, রিডিং টেবিল, রকিং চেয়ার, টেলিফোন টেবিল, ফোল্ডিং চেয়ার, আর্ম চেয়ার, রাউন্ড কফি টেবিল, কর্ণার সোফা এন্ড ইজি চেয়ার, ফুল ইজি চেয়ার, ডাইনিং সেট, টি ট্রলি, গার্ডেন চেয়ার, পেপার বাস্কেট, বুক শেলফ, ম্যাগাজিন বাস্কেট, ডাইনিং চেয়ার,বাঙ্গি টেবিল,কোর্ট হ্যাঙ্গার,মোড়া, বেবী কট, বোতল র‌্যাক ও প্ল্যান্টার। এর বেশীর ভাগই ইংল্যান্ডে রপ্তানী করা হয়। সেই সাথে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি হয় এই বেত সামগ্রী।
এক সময় সিলেটে পাহাড় টিলায় প্রচুর বেত পাওয়া যেত। স্থানীয় নাম জালি বেত, গল্লা বেত, অন্না বেত প্রচুর পরিমানে সিলেটে পাওয়া যেত। কিন্তু পাহাড় টিলা কেটে ফেলায় সিলেটের বেত বন উজাড় হয়ে গেছে। তাই পর্যাপ্ত বেত না পাওয়াতে এই শিল্পটি এখন হুমকির মুখে।
(আজ, ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২ শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ)। ##ফোসবুক থেকে নেয়া