আমার নামে মামলা হলে আমিও ডিসির নামে পাল্টা মামলা করবো,সংসদ সদস্য নিক্সন

প্রকাশিত: ৯:৪২ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ১৩, ২০২০

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাসক (ডিসি), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (ইউএনও) স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের গালিগালাজ করার অভিযোগ উঠেছে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবর রহমান চৌধুরীর (নিক্সন) বিরুদ্ধে।

 

এ ব্যাপারে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে চিঠি দিয়েছেন ফরিদপুরের ডিসি অতুল সরকার।

 

চিঠিতে উল্লেখ করেছেন, ডিসি-ইউএনওসহ নির্বাচনে দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের অত্যন্ত মানহানিকর ও অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি দিয়েছেন নিক্সন ও তার অনুসারীরা। একে নির্বাচনী আচরণবিধির পরিপন্থি উল্লেখ করে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

 

তারই পরিপ্রেক্ষিতে আইনি ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এসময় সিইসি বলেন, আমরা জানি, অভিযোগ আছে। অভিযোগটা আমরা সাথে সাথে জেনেছি। কমিশনাদের সাথে আলোচনা করেছি। করণীয় বিষয় নির্ধারণ করেছি। আজকে বা কালকের মধ্যেই করণীয়টা সিদ্ধান্ত নিয়ে জানানো হবে।

 

সিইসি বলেন, যে আচরণ একজন সংসদ সদস্য হয়ে তিনি করেছেন; তা একেবারেই কাম্য নয়। তিনি আচরণবিধি ভঙ্গ করেছেন। আইনে যেরকম বিধিবিধান আছে, তার ব্যাপারে আইনের বিধিবিধান প্রযোজ্য হবে। এতটুকু বলতে পারি।

 

এদিকে এবার এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন। মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিক্সন দাবি করেন, আমার দ্বারা নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়নি। কর্মীদের আটক নিয়ে নালিশ করেছি, গালিগালাজ করিনি।

 

তিনি আরো বলেন, নির্বাচন চলাকালীন ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ডিসি সাহেব আমার বাড়িতে ইউএনও সাহেবকে পাঠিয়েছেন, এটা তিনি করতে পারেন না। আমি যদি আচরণবিধি লঙ্ঘন করি তাহলে ডিসি সাহেবও আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। আমার নামে যদি মামলা হয়; তাহলে আমিও ডিসির নামে মামলা করবো।

 

এসময় নিক্সন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার বক্তব্য পুরোপুরি এডিট করে ছাড়া হয়েছে বলেও দাবি করেন। তিনি বলেন, শত্রুপক্ষ আমার বক্তব্য সুপার এডিট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়েছে