আমিই তো আমার নই

প্রকাশিত: ৬:৫৩ অপরাহ্ণ , ডিসেম্বর ২৪, ২০২২
সংসারে আবর্তনরত অবস্থায় এটা আমার, ওটা আমার ও আমার, সে আমার, এসবের কারণে আমিত্ব জন্মায়।আর যখনই টের পাই এসব আমার আমার এর মাঝে” আমিই” আমার নই।
অর্থাৎ এই আছি তো এই নেই! —–
ফু” টা মানে প্রাণবায়ুটা কখন যে ফুড়ুৎ করে উড়ে যাবে, আর আমিত্বে জর্জরিত অসার এই দেহ পচে গলে মিশে যাবে পৃথিবীর মাটির সাথে—–
আর তখনই তো পরমাত্মার প্রতি তীব্র ভালবাসায় সংসার সমুদ্রের সমস্ত লোনা বিষয় ( শত্রু নৈরাশ্য দুঃখ কষ্ট ব্যথা বৈষম্য বিভেদ ) সহ মণি মুক্তা, রত্ন, পাথর সব কিছুকেই বুকে ধারণ করি পরম সযত্নে।
এগুলোর সাথেই নিত্য ওঠাবসা। পিঁপড়ে হয়ে চিনিটা তুলে নিই, পড়ে থাকে বালিটা।
রাজহাঁসের মত দুধটা শুষে নিই জলটা পড়ে থাকে।
মহাপুরুষ রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব এর শিষ্য আমি।
বিবেকানন্দ শতোকষ্টে থেকেও মুক্ত হতে চাননি সংসারের যন্ত্রণা থেকে।কারণ সর্বংসহা হতে না পারার মধ্যে রয়ে যায় কাপুরুষোচিত আচরণ।
আর বিবেকানন্দ বলেছেন—- কষ্টসহিষ্ণু হয়ে নিজের বীরত্বকে প্রমাণ করতে।
যা এ সমাজ সংসারে অত্যন্ত বিরল একটা বিষয়!
পরমাত্মার রস আস্বাদন!
আমার আমিত্ব লোপ পেলেই — সিদ্ধ ” হওয়া যায়। সিদ্ধ আত্মা থেকেই সিদ্ধান্তে আসা সহজ হয়ে যায়——-
আরো কতোটা পথ চলতে হবে এই, আমার আমিত্বকে বিনাশ করবার জন্যে?
কতোদূর! কতো সময়!
২১/১২/২০১৯