মিরসরাইয়ে বাধা দিতে গিয়ে পৌর মেয়র গুলিবিদ্ধ

প্রকাশিত: ৫:৫৩ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ১৪, ২০২২

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকালে বাধা দেওয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বারইয়ারহাট পৌর সভার মেয়র রেজাউল করিম খোকন।

শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার ওচমানপুর ইউনিয়নের মুহুরী প্রকল্প এলাকায় সন্ত্রাসীরা মেয়রকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়লে গুলিবিদ্ধ হন তিনি। এছাড়া তার সঙ্গে থাকা আওয়ামী লীগ নেতা অশোক সেন ও যুবলীগ নেতা শহীদুল ইসলাম দুখুও ধারাল অস্ত্রেও আঘাতে আহত হন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মেয়রের স্বজনরা জানান, ব্যবসায়ীক কারণে শুক্রবার সকালে মেয়র রেজাউল করিম খোকন মুহুরী প্রকল্প এলাকায় যান। সেখানে ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মজিবুল হকের লোকজন তাদের ইজারাকৃত জায়গায় বালু না তুলে মিরসরাই অংশে বালু উত্তোলনের কথা জিজ্ঞাস করায় একদল সন্ত্রাসী মেয়র খোকনকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছোঁড়ে। এসময় তার সঙ্গে থাকা বারইয়ারহাট পৌর আওয়ামী লীগ নেতা অশোক সেন ও ওচমানপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শহীদুল ইসলাস দুখু সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (মাস্তান নগর হাসপাতাল) নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

মাস্তান নগর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহমুদা আক্তার জানান, মেয়র রেজাউল করিম খোকনের পেটে, কোমরে এবং কাঁধে একাধিক গুলি লেগেছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চমেকে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি দুজনের মধ্যে অশোক সেন ও শহীদ খান দুখুকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। তাদেরকেও চমেকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ নূর হোসেন মামুন ও পরিদর্শক (তদন্ত) খায়রুল আলমকে ফোন দিলে উভয়ে ফোন ধরেননি।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিরসরাই সার্কেল) লাবিব আবদুল্লাহ বলেন, মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় রেজাউল করিম, অশোক সেন ও শহীদুল ইসলাম দুখু গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। যারা গুলি করেছে তারা ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা থেকে এসেছিল। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Loading