জনপ্রিয়তার শীর্ষে আউশনারা ইউপি নির্বাচনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েল

প্রকাশিত: ৬:৪৮ অপরাহ্ণ , মে ১২, ২০২২

মেহেদী হাসান চৌধুরী টাঙ্গাইল:
মধুপুর উপজেলার আউশনারা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সবার পরিচিত মুখ আ‘লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অধ্যক্ষ মুহাম্মদ কামরুজ্জামান জুয়েল জনপ্রিয়তার শীর্ষে। ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকায় সকলের মুখে মুখে তার নাম। ফলে আ‘লীগের নতুন সম্ভবনা তৈরী হয়েছে অত্র ইউনিয়নে। রাজনৈতিক ভাবে বিএনপি-জামায়াতের প্রার্থীরা সক্রিয় না থাকায় নির্বাচনে আ‘লীগ প্রার্থী জয়লাভ করতে পারবেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে উদিয়মান নেতা, যুবকদের আইকন, শিক্ষিত, মার্জিত, পরোপকারী মুহাম্মদ কামরুজ্জামান জুয়েল নৌকার মাঝির দায়িত্ব পেলে জয় লাভ সহজ হবে বলে স্থানীয় জনগন এবং নেতা-কর্মীরা মনে করেন।

স্থানীয় জনসাধারণ ও নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা জায়, অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েল জনমত জরিপে জনপ্রিয়তায় সবার শীর্ষে অবস্থান করছেন। তিনি এগিয়ে রয়েছেন অন্যদের চাইতে সামনে। নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে মাঠে আছেন আরো কয়েকজন। তবে তাদের মধ্যে অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েলের বিকল্প নেই বলে রব উঠেছে।

বর্তমানে মুহাম্মদ কামরুজ্জামান জুয়েল মধুপুর উপজেলার আউশনারা কলেজের অধ্যক্ষ, সহ-সভাপতি আউশনারা উচ্চবিদ্যালয় ম্যানিজিং কমিটি, সাধারণ সম্পাদক দারুল হানিফ এতিমখানা মাদ্রাসা এবং মোটেরবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

তার পিতা মৃত মজিবর রহমান সরকার ১৯৭৫ পরবর্তী সময়ে আ‘লীগের সাংগঠনিক কর্মকান্ডে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন। ছাত্র জীবনে কামরুজ্জামান জুয়েল বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ে আশরাফুল হক হল শাখার ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব সফলভাবে পালন করেন। লন্ডনে লেখা পড়ার সময় প্রথম যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের কমিটি গঠন এবং সেই কমিটির প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।
লেখাপড়া শেষ করে নিজ দেশে এসেই মধুপুর উপজেলা আ‘লীগের সাথে সক্রিয়ভাবে কাজ শুরু করেন। বিগত উপজেলা, ইউপি এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আউশনারা ইউনিয়ন আ‘লীগের নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। অদ্যবধি আ‘লীগকে সু-সংগঠিত করার জন্য দিনরাত নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

সময়ের আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশী আ‘লীগ নেতা অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েল জানান, আমি নির্বাচিত হলে দুর্নীতিমুক্ত একটি আদর্শ ডিজিটাল পরিষদ গড়ে তুলবো। তিনি আরো জানান, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকরা দিন রাত পরিশ্রম করে আ‘লীগের জন্য নির্বাচনী মাঠ তৈরী করেছি। মানুষের কল্যানে কাজ করে চলেছি দিন-রাত। সাধারণ জনতা এখন পরিবর্তন দেখতে চায়। আমি সুযোগ পেলে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে আমুল পরিবর্তন আনার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

জানা গেছে, মধুপুর উপজেলার মধ্যে আউশনারা ইউপির সব কয়টি গ্রামে আ‘লীগের নেতাকর্মীরা অতীতের থেকে বর্তমানে বেশী সক্রিয়। তারা জাতীয় ও স্থানীয় দলীয় কর্মসূচিতে নৌকার স্বপক্ষে সদা সজাগ সতর্ক রয়েছে।

বিগত বছরগুলোতে আ‘লীগের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের সাথে থেকে নিরলসভাবে এলাকাবাসীর জন্য কাজ করে স্বপক্ষে নির্বাচনী মাঠ তৈরী করেছেন। আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে নেতৃবৃন্দ চুলচেরা বিশ্লেষন করে যোগ্য প্রার্থী উদিয়মান নেতা, যুবকদের আইকন, শিক্ষিত, মার্জিত, পরোপকারী অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েলকেই নৌকার মাঝি করবেন বলে তৃণমূল কর্মীদের এমনটিই প্রত্যাশা।