গোপন কথা বলে ‘ফেঁসে’ গেলেন পর্নতারকা

প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ , মে ৮, ২০২২

তিন বছর ধরে প্রতি দিনই যৌনসঙ্গম করেছেন। সঙ্গী কখনও কাজিন, কখনও রাস্তার ভবঘুরে। রাখঢাক না করে নিজের যৌনজীবনের এমনতর খুঁটিনাটি কথা বলে ‘ফেঁসে’ গিয়েছেন আমেরিকার পর্নতারকা স্টেলা বেরি। নেটমাধ্যমে তার বহু ভক্তই এখন স্টেলার উপর রেগে কাঁই! অনেকেই তার এমন ‘অনাচার’-এ বিরক্ত!

ইউটিউব, টিকটক বা টুইটার— সবেতেই লাখে লাখে লোকজন স্টেলার ছবি-ভিডিও দেখতে ‘হামলে পড়েন’। সে সব থেকে তার রোজগারও চোখকপালে তোলার মতো। প্রতি-মাসে ২ লাখ ডলার (বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ১ কোটি ৭৮ লাখ টাকা)। বেশ চলছিল। তবে সম্প্রতি একটি পডকাস্টে নিজের যৌনজীবন নিয়ে ‘খুল্লামখুল্লা’ কথাবার্তা বলেই বিপাকে পড়েছেন স্টেলা।

‘ক্যানসেলড’ নামে ওই পডকাস্টের সেই পর্বের সঞ্চালক ছিলেন হলিউডের প্রাক্তন অভিনেতা ব্রুক শিল্ডস এবং প্রভাবশালী টানা মঙ্গু। তবে ওই তারকাদের ছেড়ে স্টেলার কথাতেই আটকে গিয়েছেন তার ভক্তেরা। ভবঘুরেদের জন্য শেল্টার হোমের কাউন্সিলর থাকাকালীন এক জনের সঙ্গে উদ্দাম সঙ্গমে মেতেছিলেন বলে জানান স্টেলা। তার কথায়, ‘‘চার মাস ধরে আমরা পরস্পরকে চিনতাম। প্রতি দিন আমার জন্য একটা পুরনো টুপি এনে দিত সে। সেই টুপির গন্ধেই আমার পাগলপ্রায় অবস্থা হত।’’

স্টেলা জানিয়েছেন, ছুতোনাতায় ওই ভবঘুরের সঙ্গে বেরিয়ে যেতেন তিনি। এর পর রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে তার মধ্যেই চলত যৌনতার খেলা। স্টেলা বলেন, ‘‘ভবঘুরেদের তো হারানোর কিছু নেই। তাই তারা এতটা উদ্দাম যৌনতায় মত্ত হতে পারেন।’’ নিজের কাজিনের সঙ্গেই এমনতর ‘রঙিন’ সময় কাটিয়েছেন বলেও দাবি স্টেলার। তবে তার কথা শুনে বহু ভক্তেরই চোখ ছানাবড়া হওয়ার জোগাড়। যদিও ইউটিউবে পডকাস্টের ওই পর্বটি ৩৭৫,০০০ বার দেখা এবং শোনা হয়েছে। সেই সঙ্গে উপদেশ, ফুটকাটা মন্তব্য মিলিয়ে দু’হাজারটি উক্তিও ধেয়ে এসেছে স্টেলার উদ্দেশে।

অনেকেই স্টেলার যৌনজীবনকে ‘বিপজ্জনক’ বলেছেন। অনেকের মতে, শেল্টার হোমে কাজের জন্য গিয়ে যৌনসঙ্গমে মেতে ‘নীতিবহির্ভূত’ কাজ করেছেন স্টেলা। তবে স্টেলা কি এ কথা মানেন? তা জানা যায়নি! সূত্র: ডেইলি স্টার।