অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রশংসা করলেন সৌদি গভর্নর

প্রকাশিত: ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ , নভেম্বর ১৬, ২০২১

বিগত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সৌদি আরবের উত্তর সীমান্ত অঞ্চল প্রদেশের গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন খালিদ বিন সুলতান।

সোমবার রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার) এর সাথে বৈঠককালে এ প্রশংসা করেন তিনি।

সৌদি গভর্নর করোনা মহামারির সময়েও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সাফল্যে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং তা খুবই আশাব্যঞ্জক বলে উল্লেখ করেন। সব সময় বাংলাদেশের উন্নতির বিষয়ে খবর রাখেন বলেও জানান তিনি।

এ সময়ে ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সৌদি আরব সফরের বিষয়ে তার স্মৃতি তুলে ধরেন গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন খালিদ বিন সুলতান। আগামী দিনে ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুদেশের সম্পর্ক আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সৌদি গভর্নর বাংলাদেশের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

এ সময় রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সৌদি গভর্নরকে জানান, উত্তর সীমান্ত অঞ্চল প্রদেশের বিভিন্ন শহরে অনেক বাংলাদেশি কর্মরত রয়েছে।

এরপরই বাংলাদেশি অভিবাসীদের প্রশংসা করে গভর্নর বলেন, তিনি তাদের নিজের লোক বলে মনে করেন। তাদের সাহায্য-সহযোগিতা করা তিনি তার দায়িত্ব বলেও মনে করেন।

রাষ্ট্রদূত পাটোয়ারী বলেন, সৌদি আরবের সবুজায়ন উদ্যোগের আওতায় ১০ বিলিয়ন বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে বাংলাদেশ তাদের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা দিয়ে সহযোগিতা করতে ইচ্ছুক। মরুভূমির জন্য উপযোগী ও সহনশীল বৃক্ষের চারা সরবরাহ করার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি।
বাংলাদেশের সুন্দরবন, কক্সবাজার ও বিভিন্ন পর্যটন স্থানের সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে দুদেশের মধ্যে পর্যটক বৃদ্ধির বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন রাষ্ট্রদূত। এছাড়া দুদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বিনিময়ের কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

জাবেদ পাটোয়ারী করোনাক্রান্ত বাংলাদেশী অভিবাসীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা ও করোনাভাইরাসের টিকা প্রদান করায় সৌদি সরকারের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান।

সম্প্রতি বাংলাদেশকে করোনাভাইরাসের ১৫ লাখ ডোজ টিকা প্রদানের জন্য সৌদি বাদশাহ ও যুবরাজের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন রাষ্ট্রদূত।