ভেতরেই থাকতে হচ্ছে ডা. সাবরিনাকে

প্রকাশিত: ৬:৪৩ অপরাহ্ণ , মার্চ ৮, ২০২১

করোনা টেস্টে জালিয়াতি ও প্রতারণার মামলায় ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীর জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। এর ফলে তাকে কারাগারের ভেতরেই বন্দি থাকতে হচ্ছে। আজ সোমবার (৮ মার্চ) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত শুনানি শেষে জামিনের আবেদন নাকচ করে দেন।

সাবরিনার পক্ষে জামিন শুনানি করেন আইনজীবী প্রণব কান্তি ভৌমিক। তিনি বলেন, আসামি প্রায় ৮ মাস কারাগারে আছেন। আসামিকে কারাগারে রেখে বিচার শেষ করতে হবে এমন কথা আইনে নেই। তাই তার জামিন আবেদন করা হয়। তবে মহানগর দায়রা জজ আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে দিয়েছেন। একইসঙ্গে আদালত জামিনের জন্য হাইকোর্টে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা শনাক্তের জন্য নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা না করে ২৭ হাজার মানুষকে জেকেজি হেলথ কেয়ার ভুয়া রিপোর্ট দেয় বলে অভিযোগ উঠে। পরে ওই রিপোর্টের বেশিরভাগই ভুয়া বলে ধরা পড়ে। গত বছর ২৩ জুন প্রতিষ্ঠানটির সিলগালা করে দেয়া হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা করা হয়। গত বছর ৫ আগস্ট এ মামলায় ঢাকা সিএমএম আদালতে ৮ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। ২০ আগস্ট ডা. সাবরিনাসহ ৮ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন আদালত।

মামলার অপর আসামিরা হলেন- সাবরিনার স্বামী জেকেজির সিইও আরিফুল হক চৌধুরী, তার সহযোগী সাঈদ চৌধুরী, জালিয়াত চক্রের প্রধান হুমায়ুন কবির ও তার স্ত্রী তানজিনা পাটোয়ারী, নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম, প্রতিষ্ঠানটির ট্রেজ লাইসেন্সের স্বত্বাধিকারী জেবুন্নেছা রিমা, বিপ্লব দাস ও মামুনুর রশীদ।