টিকায় এ পর্যন্ত ৪৫৫ জনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

প্রকাশিত: ৪:২১ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২১

দেশজুড়ে করোনা টিকা প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু হয় গত ৭ ফেব্রুয়ারি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে ৪৫৫ জনের। এছাড়া বড় কোন শারীরিক অসুবিধার খবর পাওয়া যায়নি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত ১১ লাখ ৩২ হাজার ৭১১ জন মানুষ টিকা নিলেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে মাত্র ৪৫৫ জনের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তীব্র শারীরিক জটিলতার কারণে টিকা নেয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বেশি হতে পারে; সেক্ষেত্রে প্রত্যেককেই নিজের স্বাস্থ্য সর্ম্পকে জেনে টিকা নিতে হবে।

প্রথম দিন ঢাকা মহানগরের ৪৭টি কেন্দ্রে টিকা নেন ৫ হাজার ৭১ জন। একই দিনে ঢাকাসহ সারাদেশে কোভিড ভ্যাকসিন নেন ৩১ হাজার ১৬০ জন। এর মধ্যে সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে ২১ জনের।

দ্বিতীয় দিনে ভ্যাকসিন নেন ৪৬ হাজার ৫০৯ জন। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় ৯২ জনের। নয় ফেব্রুয়ারি ১ লাখ ১ হাজার ৮২ জনের মধ্য থেকে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় ৯৪ জনের।

পরদিন ভ্যাকসিন নেন ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪৫১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ১১ হাজার ৬৯১ ও নারী ৪৬ হাজার ৭৬০। এর মধ্যে মাত্র ৭০ জনের সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়। প্রথমদিকে কিছুটা সংশয় থাকলেও কেটে গেছে। এখন ভয়ডরহীন মানুষ ভিড় করছেন টিকা কেন্দ্রে।

বিভিন্ন হাসপাতালে টিকা গ্রহণকারী কয়েকজন জানান, ‘টিকা প্রদানে যে ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার তা সত্যিই প্রশংসারযোগ্য। জনগণের যে ধারণা ছিল, আসলে তা একেবারেই ভুল। কোন সমস্যা ছাড়াই টিকা নেয়া যাচ্ছে। সবার টিকা গ্রহণ করা উচিত।’

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুশতাক হোসেন বলছেন, ‘গুরুতর এলার্জিক প্রতিক্রিয়া হতে পারে, যা এখনো আমরা দেখিনি। তবে হবে না যে, তা একেবারে উড়িয়ে দেয়া যায় না। টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা কোটি ছাড়ালে হয়তো তা দেখা যেতে পারে। তবে তার চিকিৎসা বাংলাদেশে আছে।’

তিনি বলেন, ‘টিকা নেয়ার পর যদি কোন শারীরিক অসুবিধা দেখা দেয়, তাহলে সেটি অবশ্যই খতিয়ে দেখতে হবে। যাতে এটার প্রতিবিধান ঘটে। এই মুহূর্তে যিনি শয্যাশায়ী আছেন তিনি টিকা নিবেন না।’

এছাড়াও গর্ভবতী নারী, সদ্য সন্তান প্রসব করেছেন এমন নারী ও যাদের জ্বর আছে তাদেরও টিকা নেয়া থেকে বিরত পরামর্শ দেন এই বিশেষজ্ঞ।

আর টিকা গ্রহীতার অন্য কোন শারীরিক সমস্যার থাকলে জটিলতা হতে পারে, সে বিষয়ে সবাইকে সচেতন হওয়ার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ইউজিসি অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহর।

তিনি বলেন, ‘টিকায় যদি কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়, সাথে সাথে যাতে চিকিৎসা দেয়া যায় সেজন্য মেডিকেল টিম রাখা দরকার। টিকা নেয়ার পর অন্তত আধাঘণ্টা তাদেরকে বসিয়ে রাখতে হবে, যাতে দেখা যায় কোন সমস্যা হয় কিনা? যদি না হওয়ায় তাহলে স্বাভাবিক জীবনযাপন করবে। আর যদি গ্রহীতার সেরকম কিছু মনে হয়, তাহলে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন।’

এছাড়াও ক্যান্সার, কিডনী রোগসহ কঠিন শারীরিক সমস্যায় টিকা না নেয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।