আশুলিয়ায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে দোকান কর্মচারী খুন

প্রকাশিত: ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ২, ২০২১

আশুলিয়ায় কাজের বকেয়া টাকা চাইতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়ে বিশ্বজিৎ (৫৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। খবর পেয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর ঘাতক দোকানদার রিপন কান্তে পলাতক রয়েছেন।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে আশুলিয়ার বাড়ইপাড়ার পুর্বপাড়া বনভিটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় নিহতের স্ত্রী কমলা রানী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

নিহত বিশ্বজিৎ বরগুনা জেলার বেতাগী থানার প্রসেজিৎয়ের ছেলে। তিনি তার ছেলেদের সাথে আশুলিয়ায় ওই এলাকায় বসবাস করে আসছিলো।

অভিযুক্তদের নাম রিপন কান্ত, তিনি গাইবান্ধা জেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে। তবে তার বিস্তারিত পরিচয় জানা যায় নি। ঘটনার পর থেকে রিপন কান্ত পলাতক রয়েছেন।

নিহতের মেয়ে দিপা জানান, তার বাবা রিপনের দোকানে চা বানানোর কাজ করতো। সেই কাজের টাকা চাইতে গেলে রিপন উত্তেজিত হয়। এসময় বাবাকে কিলঘুষি দেয় রিপন। মারধরের শিকার হলে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। পরে হাসপাতালে নিলে মারা যান বিশ্বজিৎ।

পুলিশ জানায়, পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে রিপনের দোকানে কাজ নেয় বিশ্বজিৎ। কাজ ছেড়ে দিলেও, কিছু বকেয়া টাকা পেতেন বিশ্বজিৎ। সেই টাকা চাইতে গেলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। রিপন কান্ত উত্তেজিত হয়ে কিল ঘুষি মারলে বিশ্বজিৎ অজ্ঞান হয়ে যায়। তাকে স্থানীয় ফজিলাতুন্নেছা কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ধারণা করা হচ্ছে, নিহত বিশ্বজিৎ হার্ডের রোগী ছিলেন। এছাড়া তার শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় নি।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক জসিম উদ্দিন বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একই সাথে রিপন কান্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।