আনোয়ারায় ফসলি জমি দখল করে ইটভাটা

প্রকাশিত: ৪:৩৫ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ১৫, ২০২১

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় ফসলি জমি দখল করে গড়ে তোলা হচ্ছে ইটভাটা। জমি চাইতে গেলে হামলা-মামলার শিকার হচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা। ছাড়পত্র ছাড়াই ইটভাটা চালানোর কথা স্বীকারও করেছেন মালিক। 

সরেজমিনে গেলে গণমাধ্যম গেলে চট্টগ্রামের আনোয়ারায় পরির বিলে এমবিএম ইটভাটা মালিকের ভয়ে নিজেদের অসহায়ত্বের কথা জানান ভুক্তভোগীরা। তিনটি ফসলি জমি কেটে, সরকারি রাস্তা ঘেষে গড়ে তোলা হয়েছে ইটভাটা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ‘চুক্তি না করায় জোর করে ঘর ভাঙছে ইটভাটার মালিক। আমরা বাধা দিয়েছি কিন্তু তা মানছে না। অনেক জমি দখল করে ভাটা তৈরি করা হচ্ছে।’

তারা বলেন, ‘দখলকৃত সব জমি আবাদি। শুধু তাই নয়, পরিবেশও খারাপ হচ্ছে। দখলকারীদের সন্ত্রাসী বাহিনীও আছে। আমরা সাধারণ মানুষ, বাধা দিলেও কোন কাজে আসছে না। উল্টো মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়।’

এদিকে, পরিবেশ অধিদপ্তরের সাথে কথা হয়েছে জানিয়ে শিগগিরই অনুমতি পাওয়া যাবে বলে মন্তব্য করেন ইটভাটার সত্ত্বাধিকারী মো. শামসুল আলম।

তার দাবি, ‘আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে কে? কারো জমি আমরা দখল করিনি। মাটি ব্যবসায়ীরা আমাদের মাটি কিনে দেন, আমরা সেগুলো দিয়ে ইট বানাই।’ স্বীকৃতির জন্য জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরে আবেদন করা হয়েছে। তবে এখনও তা মিলেনি বলে জানান তিনি।

অপরদিকে অবৈধ ইটভাটা বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জমির উদ্দিন বলেন, ‘ফসল ও পরিবেশের ক্ষতি হয় এমন ইটভাটা রাখা হবে না। আমরা সব জায়গায় অভিযান শুরু করেছি। যত ইটভাটা আছে, পর্যায়ক্রমে সবগুলোতে অভিযান চালানো হবে।’etv