বিষয়ভিত্তিক গানে সুমন কল্যাণ এক অনন্য প্রতিভা

প্রকাশিত: ১০:৩১ অপরাহ্ণ , আগস্ট ১২, ২০২০
১৯৮৯ সালে একজন মিউজিশিয়ান হিসেবে সুমন কল্যাণের পথচলা। তিনি দীর্ঘদিন সিটি বয়েজ, সফট টাচ ব্যান্ড, স্পার্ক, স্টিলার, ফিলিংস ও সোলস ব্যান্ডের সাথে কাজ করেছিলেন। তারপর
তিনি স্বতন্ত্র দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে একজন গায়ক ও সংগীত পরিচালক হিসেবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করেন।
 
২০১২ সালে ‘নাগরিক আকাশ’ শিরোনামে সুমন কল্যাণের প্রথম একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। ২০১৪ সালে তাঁর দ্বিতীয় একক অ্যালবাম ‘গানের ক্রীতদাস’ শ্রোতাদের কাছে ব্যাপক সমাদৃত হয়।
 
কলেজ জীবন থেকেই বিষয়ভিক্তিক এবং জীবনমুখী গানের প্রতি ছিল তাঁর বিশেষ দরদ এবং আকর্ষণ। পপ সম্রাট আজম খানকে নিয়ে লুৎফর হাসানের কথায় গুরু, উপমহাদেশের প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী মান্না দে’কে নিয়ে নিজের কথা, সুর সংগীত এবং কণ্ঠে পুরনো, রমা চৌধুরীকে নিয়ে বীরাঙ্গনা, মহানায়িকা সুচিত্রা সেনকে নিয়ে রূপালী গান, সাভারের মর্মান্তিক ট্র্যাজেডিতে প্রাণ হারানো শাহীনাকে নিয়ে গান `‌বোনরে তোকে ভুলতে কি মোরা পারি এরকম অসংখ্য গানে কণ্ঠ, সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন সুমন কল্যাণ।
 
সুমন কল্যাণের লেজার ভিশনের ব্যানারে প্রকাশিত অ্যালবাম ‘সুইসাইড নোট’ তরুণ প্রজন্মের কাছে বিশেষ আবেদন তৈরী করে। অ্যালবামটি সুমন কল্যাণ উৎসর্গ করেছেন সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হককে।
‘সুইসাইড নোট’, ‘আরো কিছু কবিতা’ এবং ‘আমি চলে গেলে’ এই তিনটি গান নিয়ে অ্যালবামটি সাজানো হয়েছে। গানগুলো লিখেছেন ইমতিয়াজ ইকরাম, সেজুল হোসেন এবং সোমেশ্বর অলি।
কণ্ঠ দেওয়ার পাশাপাশি তিনটি গানের সুর-সংগীত করেছেন সুমন কল্যাণ নিজেই। ‘আরো কিছু কবিতা’ শিরোনামের গানটি ছিল কবি নির্মলেন্দু গুণকে নিয়ে। নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে নবাব আমিনের কথায় ‘হুমায়ুন আহমেদ’ শিরোনামে একটি গান করেছেন সুরকার-সংগীত পরিচালক ও কণ্ঠশিল্পী সুমন কল্যাণ। মুক্তিযোদ্ধা-ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীকে নিয়ে রাফি রাফিউজ্জামানের কথায় ‘প্রিয়ভাষিণী’ শিরোনামের গানটি সুর, কণ্ঠ ও সংগীত করেছেন সুমন কল্যাণ নিজেই।
এই গানটিতে প্রিয়ভাষিণীর ওপর পাকবাহিনীর পাশবিক অত্যাচার এবং পরবর্তী সময়ে সমাজ কর্তৃক অবহেলিত হওয়া এবং নতুন প্রজন্মের অনুপ্রেরণা হয়ে তার ঘুরে দাঁড়ানোর কথা উঠে এসেছে।’ কিংবদন্তি গায়ক আইয়ুব বাচ্চুকে নিয়ে রাফিউজ্জামান রাফির কথায় সুমন কল্যাণের ‘রুপালী গিটার পড়ে আছে’ গানটি খুব চমৎকার এবং শ্রোতাপ্রিয়।
 
২৩ জানুয়ারি বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা প্রয়াত নায়করাজ রাজ্জাকের জন্মদিনে নিজের সুর ও সংগীতে ‘নায়ক রাজ’ শিরোনামের গানটি কণ্ঠ দেন তিনি।
এই গানটির কথা লিখেছেন আবু সায়েম চৌধুরী।
 
শাহবাগে তরুণ প্রজন্মের নবজাগরণ নিয়ে জনি হকের কথায় ‘শাহবাগ তুমি’ শিরোনামের গানে কণ্ঠ দেওয়ার পাশাপাশি এ গানটির সুর ও সংগীত পরিচালনাও করেছেন সুমন কল্যাণ।
 
আধুনিক ও দেশের গানে সুমন কল্যাণ একজন বিশুদ্ধ এবং রুচিশীল গানের কারিগর। সুমন কল্যাণের সুর ও সংগীতে কুমার বিশ্বজিৎ ও সামিনা চৌধুরীর কণ্ঠে ‘সালাম বাংলাদেশ’ একটি অসাধারণ দেশের গান। পাশাপাশি আলম আরা মিনুর কণ্ঠে দখিনের জানালা এবং বাপ্পা মজুমদারের কণ্ঠে প্রজাপতি পথে গানটি
হৃদয় ছুঁয়ে যায়।
 
আওয়ামী লীগের সাফল্য নিয়ে আমার লেখা ‘উন্নয়ন’ শিরোনামের গানটি সুমন কল্যাণের সুর ও সংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন সাব্বির এবং লিজা ।
 

২৮ সেপ্টেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে কিশোর, লিজা, পুলক, পুতুলের কণ্ঠে ‘জনতার মঞ্চে’ শিরোনামের গানটিতে সংগীতায়োজন করেন সুমন কল্যাণ। গানটি সুর করেন যাদু রিছিল।

 
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অসংখ্য গানে সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন সুমন কল্যাণ। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আমার লেখা শুভমিতার কণ্ঠে ‘আবার এসো পিতা’, সুবীর নন্দীর কণ্ঠে ‘৩২ নম্বর’ ফাহমিদা নবীর কণ্ঠে ‘পিতার রক্তে’ গানে সংগীতায়োজন করেছেন সুমন কল্যাণ। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন নিয়ে আমার লেখা অবন্তি সিঁথির কণ্ঠে ‘মুক্তির সংগ্রাম’, গানে তিনি সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন।
 
মুজিববর্ষ নিয়ে কিশোর, সাব্বির, লুইপা, রন্টি দাশের কণ্ঠে আমার লেখা মুজিববর্ষ শিরোনামের গানটিতে সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন সুমন কল্যাণ। পাশাপাশি আমার লেখা প্রিয়াংকা গোপের কণ্ঠে ‘বাংলা মা’, এবং শেখ রাসেলকে নিয়ে তাঁর নিজের সুর ও সংগীতে ‘শেখ রাসেলের ক্রন্দন’ শিরোনামে গানটি গেয়েছেন।
 
হানিফ সংকেতের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদি’তে বরেণ্য গীতিকার মোহাম্মদ রফিকুজ্জামানের লেখা ‘এই দেশটিকে ভালবাসি’ শিরোনামের গানটিতে সুর করেছেন সুমন কল্যাণ। অসাধারণ এই দেশের গানটি গেয়েছেন এন্ড্রুকিশোর, কুমার বিশ্বজিৎ ও শফি মন্ডল। ইত্যাদিতে এন্ড্রুকিশোরের গাওয়া শেষ গানেও সুমন কল্যাণ সুর ও সংগীতায়োজন করছেন।
 
সর্বশেষ শামীম আহমেদের ‘১৯৭৫’ সিনেমায় সুদীপ কুমার দীপের কথায় সুমন কল্যাণের সুরে ‘মুজিব’ শিরোনামের গানটিতে কণ্ঠ দেন জনপ্রিয় অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু।
 
সুমন কল্যাণ তরুণ প্রজন্মের সংগীত শিল্পীদের কাছে একটি প্রেরণার নাম।
সুমন কল্যাণ ভাল লাগার জায়গা থেকে, সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে গান করেন। মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ সুমন কল্যাণের কাছে আদর্শের নাম, অনুভূতির নাম। যে আদর্শ আমাদের কাছে অনুকরণীয় এবং শ্রদ্ধার।
 
প্রমিথ বাংলায় বিশুদ্ধ উচ্চারণ, মেলোডি সুর তৈরিতে সুনিপুণ কারিগর সুমন কল্যাণ একজন সংগীতের তারুণ্যদীপ্ত পথিক। তাঁর সংগীতের এই পথচলা আরো সুন্দর আরো স্বপ্নীল হোক, সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাক আরো দূর থেকে বহুদূর।

 

লেখক: সুজন হাজং, গীতিকার