রাজধানীর কোন এলাকায় কতজন আক্রান্ত

প্রকাশিত: ৫:১৮ অপরাহ্ণ , আগস্ট ২, ২০২০

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে দেশে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমছেই না। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা রাজধানী ঢাকাতেই সবচেয়ে বেশি। গেল ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে মারা গেছেন ২২ জন। আর আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৮৮৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৮৬ জন। দেশে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জনে। মোট মারা গেছেন ৩ হাজার ১৫৪ জন। মারা যাওয়া ১৭ জন পুরুষ ও ৫ জন নারী।

রোববার (২ আগস্ট) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়। অনলাইনে বুলেটিন উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।তিনি জানান, দেশে মোট মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে আছেন ১৫০৫ জন, চট্টগ্রামে ৭৬৫, রাজশাহীতে ১৯০, খুলনায় ২২৯, বরিশালে ১২৬ জন, সিলেটে ১৫২, রংপুরে ১১৯ জন, ময়মনসিংহে ৬৮ জন মারা গেছেন।দেশে মোট মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ০ থেকে ১০ বছরের মধ্যে ১৮ জন, ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী বছরের মধ্যে ৩২ জন, ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী বছরের মধ্যে ৮৭ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী বছরের মধ্যে ২০৭ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী বছরের মধ্যে ৪৩৯ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী বছরের মধ্যে ৯০৯ জন, ৬০ বছরের বেশি বয়স্ক বছরের মধ্যে ১৪৬২ জন মারা গেছেন।ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, দেশে করোনাভাইরাসে গেল ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৮৮৬ জন। শনাক্তের হার ২৪ দশমিক ৫ শতাংশ। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ২০ দশমিক ২৪ শতাংশ। দেশে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জনে। এদিকে আরও ৬৮৬ সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে মোট এক লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৯ জন সুস্থ হলেন। সুস্থতার হার ৫৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ। মৃতের হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা হলো- মিরপুর এলাকা ২,১৮৭, উত্তরা ৮৫৯, মোহাম্মদপুর ৭২৩, মহাখালী ৬১৭, ধানমন্ডি ৬০১, যাত্রাবাড়ী ৫৯৬, মুগদা ৫৫৫, মগবাজার ৪১৩, খিলগাঁও ৪০৪, তেজগাঁও ৩৭৯, রামপুরা ৩৭৭, বাড্ডা ৩৫৮, লালবাগ ৩৩৭, কাকরাইল ৩১৮, গুলশান ৩১৪, বাসাবো ২৭৬, রাজারবাগ ২৪৫, মালিবাগ ২৩৬, গেন্ডারিয়া ২০৪, ওয়ারী ১৮৭, আদাবর ১৭৫, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা ১৬৮, আজিমপুর ১৬৫, বাবু বাজার ১৬২, বনশ্রী ১৬২, বংশাল ১৬০, আগারগাঁও ১৫৯, শ্যামলী ১৫৬, ডেমরা ১৫৩, হাজারীবাগ ১৪৭, বনানী ১৪১, শাহবাগ ১৪০, রমনা ১৩১, শান্তিনগর ১১৭, পল্টন ১১২ ও পোস্তগোলা ৫ জন।উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে। তার ঠিক ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।