নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে, প্রত্যাশা জাপানের

প্রকাশিত: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ১৪, ২০২২

বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক হবে বলে প্রত্যাশা করছেন জাপানী রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। বলেছেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। জাপানি রাষ্ট্রদূত কথা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন জাপান সফর ও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ইস্যু নিয়েও।

রাজধানীর একটি হোটেলে সেন্টার ফর গভর্নেন্স স্টাডিজের ‘মিট দ্য এম্বাসাডর’ অনুষ্ঠান। এবারের অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি।

উঠে আসে বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন, জাপান-বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন জাপান সফর, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন-সহ নানা ইস্যু।

জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বলেন, বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। জাপান আশা করে, নির্বাচন অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক হবে।

তিনি বলেন, “পুলিশ কর্মকর্তারা আরও সতর্ক হবেন বলে আমরা আশা করছি। জাপান বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন প্রত্যাশা করে। বাংলাদেশের উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে আমাদের চাওয়া থাকবে, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা আরও সামনে এগিয়ে যাবে। আর উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা চলমান রাখতে হলে অবশ্যই রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা জরুরি। সেজন্য আমাদের চাওয়া থাকবে, নির্বাচনে গণতান্ত্রিক উপায়ে সকল দল অংশগ্রহণ করবে।”

মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনতে পারে বলে মন্তব্য করেন ইতো নাওকি। পাশাপাশি উন্নয়ন, অবকাঠামো নির্মাণসহ অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় বিশ্বস্ত বন্ধু হিসেবে জাপান বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে জানান জাপানি রাষ্ট্রদূত।

প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার আসন্ন জাপান সফরে দুদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে বলেও জানান তিনি।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রসঙ্গে জাপানি রাষ্ট্রদূত বলেন, এ বিষয়ে সবসময় বাংলাদেশের পাশে আছে জাপান।