সাভারে মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা

প্রকাশিত: ১২:১১ পূর্বাহ্ণ , জুন ২৩, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার : সাভারে মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে পৌরসভার রেডিও কলোনী ভাড়পাড়া এলাকা এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ভাটপাড়া মহল্লার শাহজাহান মিয়া ছেলে শহিদুল ইসলাম সাইদুল (৩৩) বাদি হয়ে সাভার মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। বিবাদীরা হলেন পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের ভাটপাড়া এলাকার সিকিম আলীর ছেলে মোঃ হাকিম (৪০) ও রাজু ওরফে রাজিব (২৫) সহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪ জন বিবাদী সকরা হয়। এ ঘটনার পরে থেকে ওই এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
বাদি শহিদুল ইসলাম সাইদুল ও অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, দীর্ঘ দিন যাবৎ বাদির বাড়ীর পাশে এসে বিভিন্ন সময় মাদকসেবন করে বিবাদীগন। তার বাড়ির পাশে নেশা সেবন করিতে নিষেধ করিলে বিবাদীগন তাকে মেরে ফেলাসহ নানা রকমের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে বিভিন্ন সময়। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে রেডিও কলোনী থেকে ভাড়পাড়া মসজিদ সংলগ্ন কবিরের দোকানের সামনে পৌছিলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওত পেতে থাকা উল্লেখিত বিবাদীগন হাতে ধারালো ছুরি, কেচি ও সুইগিয়ার চাকু এবং চাইনিজ কুরাল নিয়ে তার উপর অতর্কিতভাবে হামলা করে। একপর্যায়ে ১নং বিবাদী মোঃ হাকিমের হাতে থাকা সুইজগিয়ার চাকু দিয়ে তাকে (বাদি) হত্যার উদ্দেশ্যে পেটে ও পেটের বাম পাশে আঘাত করে মারাত্বক কাটা রক্তাক্ত জখম করে। এসময় ২নং বিবাদী মোঃ রাজু ওরফে রাজিবের হাতে থাকা কেচি দিয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ডান হাতের কবজি, পায়ু পথের উপরে ও মেরুদন্ডের উপরে এবং বাম কনুইতে উপর্যুপরি আঘাত করিয়া মারাত্মক কাটা রক্তাক্ত জখম করে। এছাড়াও অজ্ঞাতনামা বিবাদীরা লোহার রড দিয়ে তাকে এলোপাথারীভাবে আঘাত করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। আঘাতে ফলে তিনি মাটিতে পড়ে গেলে বাদির পরিহিত প্যান্টের ডান পকেটে থাকা নগদ ৩,৫০,০০০/- (তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা নিয়ে নেয়। তখন তার ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন আগাইয়া আসিতে থাকিলে বিবাদীগন দৌড়ে পাালয়ে যায়। পরে স্বজন ও আশেপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। এরপর সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা।এবিষয়ে সাভার মডেল থানার এস আই আব্দুল হক বলেন আমি অভিযোগের ব্যাপারে এখনো পর্যন্ত কিছু জানিনা।তবে অভিযোগ এর কপি হতে পেলে তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।