আবহাওয়ার বৈরীতাই এখন ‘নতুন স্বাভাবিকতা’

প্রকাশিত: ৪:৫৩ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ১, ২০২১
ফাইল ছবি

আবহাওয়ার বৈরী রূপই এখন প্রকৃতির ‘নতুন স্বাভাবিকতা’ হয়ে উঠেছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা-ডব্লিউএমও।

জলবায়ু সম্মেলনে সোমবার প্রকাশিত ২০২১ সালের ‘দ্য স্টেট অব দ্য ক্লাইমেট রিপোটে’ ডব্লিউএমও দেখিয়েছে,কীভাবে বদলে যাচ্ছে এবং বাসের অযোগ্য হয়ে উঠছে পৃথিবী।

গেল ২০ বছরের গড় তাপমাত্রা হিসাব করে প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, শিল্পায়ন যুগের আগের তুলনায় পৃথিবীর তাপমাত্রা এবারই প্রথম অনেকটা বেড়ে গেছে। ২০২১ সালে এসে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা যা দাঁড়িয়েছে সেটিও শঙ্কাজনক।

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় বিশ্বনেতারা মিলিত হয়েছেন স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে। এই সম্মেলনের শুরুতেই এই প্রতিবেদন প্রকাশ করল ডব্লিউএমও।

প্রতিবেদনটিতে আরও দেখানো হয়, বায়ুমণ্ডলে গ্রিনহাউজ গ্যাসের ঘনত্ব রেকর্ড পর্যায়ে পৌঁছেছে। যে কারণে ২০২১ সহ গত সাত বছরে পৃথিবীর তাপমাত্রা আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

এই বাড়তি তামপাত্রা পৃথিবীকে এক নতুন পরিস্থিতির মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে বলে জানিয়েছেন ডব্লিউএমওর অধ্যাপক পেত্তেরি তালাস।

তিনি বলেন, “আবহাওয়ার চরমভাবাপন্ন ঘটনাগুলোই এখন নতুন বাস্তবতা।”

মানুষের কর্মকাণ্ডের কারণেই যে জলবায়ু বদলে যাচ্ছে, সে বিষয়ে বৈজ্ঞানিক তথ্য-প্রমাণ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
এ সময় জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে চলতি বছর পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষকে যে চরম আবহাওয়ার মুখোমুখি হতে হয়েছে, তার কিছু বিবরণও দেন তিনি।

গ্রীনল্যান্ডের বরফ গলছে

১. মানুষ যখন থেকে রেকর্ড সংরক্ষণ শুরু করেছে তার মধ্যে এবারই প্রথম গ্রিনল্যান্ডের বরফাঞ্চলে তুষারপাতের বদলে বৃষ্টি হয়েছে।

২. কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অংশ দিয়ে বয়ে যাওয়া তাপপ্রবাহের মধ্যে ব্রিটিশ কলম্বিয়ার এক গ্রামে তাপমাত্রা উঠে গিয়েছিল প্রায় ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

কানাডায় তাপমাত্রা যখন ৪৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস

৩. এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে বয়ে যাওয়া এক তাপপ্রবাহের সময় ক্যালিফোর্নিয়ার ডেথ ভ্যালিতেও তাপমাত্রা ৫৪.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছেছিল।

ডেথ ভ্যালিতে যখন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা

৪.  চীনের একটি অঞ্চলে মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এত বৃষ্টি হয়েছিল, যা আগের বছরগুলোতে কয়েক মাসেও হয়নি।

সর্বোচ্চ বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত চীন 

৫. ইউরোপের কিছু দেশ এবার বড় ধরনের বন্যার কবলে পড়েছিল, যাতে প্রাণ গিয়েছে শতাধিক মানুষের, আর্থিক ক্ষতির পরিমাণও ছাড়িয়েছে  কয়েক বিলিয়ন ডলার।

বন্যার কবলে পশ্চিম ইউরোপ 

৬. দক্ষিণ আমেরিকার ক্রান্তীয় অঞ্চলে টানা দ্বিতীয় বছরের মত খরা দেখা দেওয়ায় শুকিয়ে গেছে নদীর প্রবাহ। কৃষি, পরিবহন ও জ্বালানি উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে দারুণভাবে।

শুকিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার নদী

বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার গবেষণা বলছে, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির যে তথ্য এবার তারা পেয়েছে, তা যথেষ্ট উদ্বেগজনক।১৯৯৩ সালে মহাকাশ থেকে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে প্রথম যখন সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা মাপা হয়েছিল, তার তুলনায় ২০০২ সালে উচ্চতা বেড়েছে ২.১ মিলিমিটার। কিন্তু ২০১৩ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়েছে ৪.৪ মিলিমিটারের বেশি।

ডব্লিউএমও বলছে, উষ্ণতা বৃদ্ধির ফলে গলে যাচ্ছে মেরু অঞ্চল ও হিমবাহের বরফ, সেটাই সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা দ্রুত বাড়ার মূল কারণ।

সূত্র: বিবিসি

Loading