হঠাৎ ইন্ডাস্ট্রির উপর চটলেন শ্রীলেখা

প্রকাশিত: ১:৫৬ অপরাহ্ণ , জুন ১৯, ২০২০

সুশান্ত সিং রাজপুতের অকাল মৃত্যুতে মুখ খুলছেন অনেকেই। সরব হয়ে উঠেছেন টালিউড, বলিউড তারকাদের কেউ কেউ। এবার মুখ খুললেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে এ নিয়ে অনেক কথা বলছেন তিনি।

শ্রীলেখা বলেছেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে সুশান্তের মতই তাঁর কোনও গডফাদার ছিল না । ফলে কাজ পেতে এবং কাজ টিকিয়ে রাখতে তাঁকে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। তাঁর কথায় ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে সবসময়ই পাওয়ার গেম চলে। সেই সঙ্গে রয়েছে ক্ষমতার আস্ফালন।’

তিনি আরও বলেছেন, ১৯৯৭-৯৮ যখন তিনি অভিনয় করতে আসেন তখন জুটি হিসেবে হিট প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা। কোনওদিনই মুখ্য চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেলাম না। সবদিনই নায়িকার বোন, দিদি হয়েই থাকতে হল। এমনকী জুটিও তৈরি করতে পারলাম না।

তাঁর কথায়, আসলে আমি ক্যামেরার সামনে ভালো নাটক করতে পারি। কিন্তু ক্যামেরাটা বন্ধ হয়ে গেলে অভিনয়টা আর করতে পারি না। ফলে প্রথম দিন থেকেই আমি এখানে ঠিক খাপ খাওয়াতে পারলাম না। কিন্তু মুখে বলা হত আমি অভিনয়টা ভালো পারি। হিরোইন হওয়ার যোগ্য। কিন্তু সব ঠিক হয়ে যাওয়ার পরই কীভাবে যেন বাদ পড়ে যেতাম। আজ আমার বাড়ির নীচে দামি গাড়ি সার দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে না। কিন্তু আমার রাতের ঘুমটা তাঁদের থেকে অনেক ভালো হয়। নিজের শর্তে খুব ভালো আছি।

শ্রীলেখা স্পষ্টভাবে বলেছেন, হ্যাঁ, আমি ডিপ্রেশনের রোগী। তবে হারিনি। আমার অভিমান খুব ব্যক্তিগত। আমি কাজ পাওয়ার জন্য প্রেম করতে চাইনি। কোনও ছলানিপনা নেই। আমি সৎ, আমি যখন থাকব না তখন যাতে আমার সততাটুকু থেকে যায় সেই চেষ্টাই করেছি। আমি কাঁধ চাই না। আমার কাধ খুব শক্ত। আমার কাঁধেই অনেকে মাথা রাখতে পারে।

এ রকম অনেক কথা আক্ষেপের সঙ্গে তুলে ধরেছেন তিনি। তার বক্তব্য থেকে তিনি এটাই বুঝাতে চেষ্টা করেছেন যে- সুশান্ত সিং রাজপুত এরকম অনেক কিছুর সংমিশ্রনে হতাশার মধ্যে পড়ে গিয়েই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।