সোনার দাম কমছে

প্রকাশিত: ৭:৪৭ অপরাহ্ণ , জুন ১১, ২০২০

২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সোনার আমদানির ওপর ভ্যাট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এতে করে কমবে সোনার দাম। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ৩টা থেকে জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করতে গিয়ে এ তথ্য জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

চলতি অর্থবছর বিদেশ থেকে সোনা আনতে ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হতো আমদানিকারকদের। ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে এ ভ্যাট না নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবিষ্যৎ পথপরিক্রমা’ শিরোনামে ২০২০-২১ অর্থবছরের ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল। এটি চলতি অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে ৪৪ হাজার ৮১০ কোটি টাকা বেশি। শতাংশ হিসাবে ৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ বেশি। চলতি অর্থবছরের (২০১৯-২০২০) বাজেটের আকার ছিল পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। এর আগে দুপুরে মন্ত্রিসভার প্রস্তাবিত বাজেটে অনুমোদন দেয়া হয় এবং পরে ওই প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

দেশের বাজারে ছোট-বড় ১৫ হাজার স্বর্ণ ব্যবসায়ী রয়েছেন। দেশে বছরে সোনার চাহিদা প্রায় ২০ টন। যার পুরোটাই আসত চোরাচালানের মাধ্যমে। এতে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হতো। সার্বিক দিক বিবেচনা করে গত বছর স্বর্ণ আমদানির নীতিমালা জারি করে সরকার। পরবর্তীতে যাচাই-বাছাই শেষে একটি ব্যাংকসহ ১৮ প্রতিষ্ঠানকে দুই বছরের জন্য স্বর্ণ আমদানির ডিলার লাইসেন্স দেয়া হয়।

যেসব প্রতিষ্ঠান সোনা আমদানির লাইসেন্স পেয়েছে, মধুমতি ব্যাংক, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড, জুয়েলারি হাউস, রতনা গোল্ড, অরোসা গোল্ড কর্পোরেশন, আমিন জুয়েলার্স, স্রেজা গোল্ড প্যালেস, জরোয়া হাউস লিমিটেড, মিলন বাজার, এসকিউ ট্রেডিং, এমকে ইন্টারন্যাশনাল, বুরাক কমোডিটিস এক্সচেঞ্জ, গোল্ডেন ওয়ার্ল্ড জুয়েলার্স, রিয়া জুয়েলার্স, লক্ষ্মী জুয়েলার্স, বিডেক্স গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ড, ডি ডামাস ও দি আর্ট অব গ্যালারি।