ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিজিবির টহল, মোড়ে মোড়ে পুলিশ

প্রকাশিত: ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ , মার্চ ২৭, ২০২১
??????????????? ??????? ???, ???? ???? ?????

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পরিস্থিতি দৃশ্যত স্বাভাবিক। টহল দিচ্ছে বিজিবি এবং র‌্যাব। বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে রয়েছে পুলিশ।শুক্রবার বিকেল থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে আগমনের প্রতিবাদে শহরের জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসা ও জামিয়া সিরাজুল উলুম মাদরাসার ছাত্ররা বিক্ষোভ শুরু করে। বিকেল ৩টার দিকে মাদরাসাছাত্ররা ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে অগ্নিসংযোগ করে। জেলা শহরে বিভিন্ন সরকারি অফিসে হামলা চালায়। ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় রেলস্টেশন।

স্টেশন মাস্টার মো. শোয়েব জানান, ক্ষয়ক্ষতি অনেক। এটি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসে নিরূপণ করবেন। ট্রেন চললেও যাত্রীরা কোনও সেবা পাবেন না এই স্টেশনের।

হামলা হয় পুলিশ সুপারের কার্যালয় ও সার্কিট হাউজে। পুড়িয়ে দেয়া হয় গাড়ি। পার্শ্ববর্তী মৎস্য ভবন, সিভিল সার্জন কার্যালয় জেলা পরিষদ ডাকবাংলো ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা ভবনে আগুন দেয়া হয়। এসময় ভাঙচুর করা হয় একটি গাড়ি।

বেলা ৩টার পর শহরের ভাদুঘর এলাকায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে অবস্থান নেয় মাদরাসা ছাত্ররা। টায়ার জ্বালিয়ে আগুন ধরিয়ে রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে শহর অভ্যন্তরে প্রধান সড়কেও বিক্ষোভ শুরু করে মাদরাসা ছাত্ররা। শহরের টিএরোড, কুমারশীল মোড়ে অবস্থান নিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। শহরের বিভিন্ন স্থানে স্থাপন করা সিসিটিভি ক্যামেরা ভাংচুর করা হয়।