ভোলার বোরহানউদ্দিনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলায়েত হোসেনের রাজনীতির ৩১ বছর

প্রকাশিত: ১২:৩৩ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ১৬, ২০২১

বেলায়েত হোসেন।আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে যিনি পার করেছেন জীবনের ৩১ বছর।মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী একজন আদর্শ রাজনীতিকের ক্যারিয়ারে এতোবড় ত্যাগ ও দর্শণ তৃণমূলে খুঁজে পাওয়া দুস্কর।

বোরহানউদ্দিনের টবগী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে ঐতিহ্যবাহী দফাদার বাড়িতে ১৯৭৬ সালের ১২ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর বাবা মরহুম কয়ছর আহম্মেদ ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা। মাতা ছবেদা খাতুন।

নির্ভীক ও জনদরদি রাজনীতিক হিসেবে যিনি বোরহানউদ্দিনের তৃণমূলের গণ মানুষের ভালোবাসা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।যুব সমাজের কাছে তিনি রাজনীতির অনুসরণীয় আদর্শ।

বেলায়েত হোসেন ছাত্রজীবন থেকেই রাজনীতি শুরু করলেও নব্বই দশকে গোড়ার দিকে এসে ৬৯’র গণভ্যুত্থানের মহানায়ক, সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী ও ভোলা-১ আসনের এমপি আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে রাজনীতিতে সক্রিয় হন

১৯৯২ সালে টবগী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হন।১৯৯৫ সালে শাহাবাজপুর সরকারি কলেজের সভাপতি, ১৯৯৬ সালে একই কলেজের ছাত্র সংসদের এ. জি. এস নির্বাচিত হন।১৯৯৮ সালে তিনি বোরহানউদ্দিন উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক, ২০০৪ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।এর আগে ২০০৩ সালে ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন।বর্তমানে টবগী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন।১৯৯৪ সালে ভোলা জেলখানায় থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। এছাড়া কর্মজীবনে কাচিয়া টবগী ইপি ডিগ্রী কলেজের বি. পি. এড শিক্ষক।তাঁর সমবয়সী ভোলার তৃণমূলে আওয়ামীলীগের কোনো রাজনৈতিক নেতা বা, কর্মির রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে এমনটি খুঁজে কঠিন হতেই পারে।

এদিকে সরেজমিন ঘুরে তাঁর ব্যাপক জনপ্রিয়তা লক্ষ্য করা যায়।তিনি টবগী ইউনিয়ন হতে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ইতোমধ্যেই নিজের অবস্থান তুলে ধরেছেন।শুরু করেছেন গণ সংযোগ।করোনাকালে নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে হাজারো মানুষকে সাহায্য ও প্রণোদনা দেন।ধর্মীয় ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রয়েছে তাঁর উন্নয়ন সহযোগিতা।

বিগত বিএনপি শাসনামলে তিনি ও তাঁর পরিবার সীমাহীন নির্যাতনের শিকার হন।ফেরারি জীবন কাটান দীর্ঘদিন।

আওয়ামীলীগের একযুগ শাসনামলে এলাকার অসহায় ও বঞ্চিত মানুষের কাছে ‘গরিবের বন্ধু’ হিসেবে রয়েছে তাঁর আলাদা পরিচিতি।সদালাপি, নিরহংকার ও মানবতাবাদি সাদামনের এই রাজনীতিক আওয়ামীলীগের দুঃসময়ের পরীক্ষিত কান্ডারি।ভোলা-২ আসনের এমপি আলহাজ্ব আলী আজমের প্রতি আজ্ঞাবহ থেকে বোরহানউদ্দিনে আওয়ামীলীগের সকল রাজনৈতিক কর্মসুচিতে সম্পৃক্ত রয়েছেন।দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে একজন ভালো মানুষ হিসেবে রয়েছে তাঁর বিশেষ গ্রহণযোগ্যতা।

এ প্রসংগে বেলায়েত হোসেন বলেন,”আমার অনুভুতি ও চিন্তাধারায় আওয়ামীলীগের রাজনীতি।আমি উড়ে এসে জুরে বসিনি। গণমানুষের কল্যাণে
সবসময় কাজ করি।যুবসমাজকে আদর্শ মানুষ হয়ে দেশ ও জাতির উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করার জন্য সবসময় সৎ উপদেশ দেই।

তিনি আরো বলেন,এমপি আলহাজ্ব আলী আজম মুকুলের দিকনির্দেশনায় এলাকার মানুষের সেবা করে যাচ্ছি এবং যাবো।”তিনি আরো বলেন, দলীয় হাইকমান্ডের প্রতি আস্থা রেখেই আমি সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই।

এদিকে এলাকার সকল শান্তিপ্রিয় মানুষ ও দলীয় নেতাকর্মীরা নিবেদিতপ্রাণ উদ্যোমী বেলায়েত হোসেনকে বোরহানউদ্দিন উপজেলার ৭ নং টবগী ইউনিয়নের আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে, চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ণ দেয়ার জন্য দলের হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত কামনা করছেন।