স্বামী-শাশুড়ি গ্রেফতার

যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন

প্রকাশিত: ১১:০৮ পূর্বাহ্ণ , জানুয়ারি ৭, ২০২১

নওগাঁর নিয়ামতপুরে যৌতুকের দাবিতে শাহিনুর বেগম (৩২) নামে এক গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে পুলিশ। 

বুধবার (৬ জানুয়ারি) উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের আমইল সোনারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গৃহবধূর স্বামী আব্দুর রাজ্জাক (৪০) ও শাশুড়ি রহিমা বেওয়া (৬০)-কে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলা করেছেন গৃহবধূর মা।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের আমইল সোনারপাড়া গ্রামের মৃত-আছির উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাকের সাথে প্রায় ১০-১২ বছর আগে পাশের চৌপুকুরিয়া গ্রামের মৃত মোমতাজ আলীর মেয়ে শাহিনুর বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে ওই গৃহবধূকে নির্যাতন করতেন তার স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। সবশেষ গত মঙ্গলবার সকালে আব্দুর রাজ্জাক ১ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে ওই গৃহবধূর উপর শারীরিক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে গৃহবধূর মাথার চুল কেটে দেয়। এরপর থেকে গৃহবধূকে সবার সাথে দেখা সাক্ষাত ও যোগাযোগ বন্ধ করে তাকে গৃহবন্দী করে রাখে।

পরদিন বুধবারও সকালে একইভাবে শাহিনুরের উপর নির্যাতন চালানো হয়। এ সময় খবর পেয়ে শাহিনুরের মা হাফেজা বেওয়া মেয়ের বাড়িতে ছুটে আসে। মেয়ের সাথে দেখা করতে চাইলে আব্দুর রাজ্জাক বলে আপনার মেয়ে ভালে আছে, আগে যৌতুকের টাকা নিয়ে আসেন তারপর দেখা করেন।

এর একপর্যায়ে হাফেজা থানা পুলিশের শরণাপন্ন হলে পুলিশ তাৎক্ষণিক ফোর্স পাঠিয়ে গৃহবধূকে উদ্ধার করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, ‘নির্যাতনের ঘটনায় গৃহবধূর মা থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।