স্বামীর মানিব্যাগে প্রেমিকার ছবি দেখাই কাল হলো ঐশীর

প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ১, ২০২০

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় পরকীয়ার প্রতিবাদ করায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের মানিকনগর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত গৃহবধূর নাম ঐশী খাতুন (২০)। তিনি উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের চর-আওতাপাড়া গ্রামের মাহাবুল আলমের মেয়ে। অভিযুক্ত স্বামীর নাম জাহিদ। তিনি ছলিমপুর ইউনিয়নের মানিকনগর গ্রামের জাহিদের ছেলে।
নিহত ঐশীর আট মাস বয়সী একটি সন্তান রয়েছে। তবে ঘটনাটিকে আত্মহত্যা বলে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছে জাহিদ ও তার পরিবার।
নিহত ঐশীর মা সাহানারা বেগম জানান, ২০১৯ সালে ঈশ্বরদী উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের মানিকনগর গ্রামের হারুনের ছেলে জাহিদের সঙ্গে ঐশীর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় জাহিদকে তিন লাখ টাকা যৌতুক দেয়া হয়। এরপরও যৌতুকের জন্য চাপ দেয় জাহিদের পরিবার।
এছাড়াও জাহিদের অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ লেগেই থাকতো।
গেলো বৃহস্পতিবার জাহিদের মানিব্যাগে প্রেমিকার ছবি দেখতে পেয়ে ঐশী এর প্রতিবাদ করে। এ কারণে জাহিদ ঐশীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে। বেধড়ক মারপিটের কারণে ঐশী মারা গেলে শনিবার রাতে জাহিদ মোবাইল ফোনে জানায় ঐশী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন জানান, নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া বলা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ওসি আরও জানান, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরপরই অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। ঐশীর স্বামী জাহিদ ও তার পরিবারের লোকজন বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছেন।