পদ্মা সেতুতে বসলো ৩৫তম স্প্যান

প্রকাশিত: ৫:৪২ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ৩১, ২০২০

বসানো হলো পদ্মা সেতুর ৩৫তম স্প্যান (২-বি)। আজ শনিবার দুপুর ২.৪০মিনিটের দিকে এ স্প্যানটি বসানো হয়। এ স্প্যানটি বসানো হয় সেতুর ৮ ও ৯ নম্বর পিলারের উপর। এটি বসানোর পর দৃশ্যমান হলো সেতুর ৫,২৫০ মিটার।

এর আগে গতকাল শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) এ স্প্যানটি বসানোর প্রোগ্রাম থাকলেও নাব্য সংকটে তা বসানো সম্ভব হয়নি।
এর আগে গত ২৫ অক্টোবর বসানো হয় পদ্মা সেতুর ৩৪ তম স্প্যানটি। এ স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে বাকি রইলো আর ছয়টি স্প্যান। এ বছরই বাকি ছয়টি স্প্যান বসে পড়বে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।
আজ সকাল ৯ টা ২৫ মিনিটের দিকে মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬শ টন ওজন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই ৩ হাজার ১৪০ টন ওজনের ধূসর রঙ এর ১৫০ মিটার দৈর্ঘের ৩৫ তম স্প্যানটি নিয়ে ৮ ও ৯ নাম্বার পিলারের (পিয়ারের) উদ্দেশে রওয়ানা হয়। সোয়া ১০ টার দিকে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই স্প্যান নিয়ে পিলারের সামনে পৌঁছানোর পরই শুরু ক্রেন নোঙ্গরসহ স্প্যান বসানোর সকল কার্যক্রম।
পদ্মা সেতুর প্রকৌশলী (মূল সেতু) মো. হুমায়ুন কবির জানান, পদ্মা সেতুর ৩৫তম স্প্যান বসানো হয়েছে।এঙ্করে জটিলতা দেখা দেওয়ায় স্প্যান বসানোর কিছুটা সময় লাগে।গতকাল শুক্রবার ৩০ অক্টোবর এ স্প্যানটি বসানোর প্রোগ্রাম থাকলেও নাব্য সংকট থাকায় বসানো সম্ভব হয়নি। স্প্যান বহনকারী ক্রেন নির্দিষ্ট পিলারের সামনে পৌঁছাতে ও নোঙর করতে যে পরিমান পানির প্রয়োজন তা না থাকায় গেলো তিন দিন ধরে ড্রেজিং কাজ চালানো হয়।
প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘের দ্বিতল সেতুটি কংক্রিট ও স্ট্রিল দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে।