বেলারুশে গ্রেফতার ডিডাব্লিউর সাংবাদিক

প্রকাশিত: ১:৪৯ অপরাহ্ণ , আগস্ট ৭, ২০২০

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে বেলারুশে নিরপেক্ষ সাংবাদিকদের টার্গেট করা হচ্ছে। ডিডাব্লিউর এক সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।তাঁর পরিবারের সঙ্গে ৪৬ তম জন্মদিন পালনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন আলেকজান্ডার বুরাকভ। তিনি ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক। ডিডাব্লিউর রুশ ভাষার হয়ে রিপোর্ট করেন। কিন্তু তাঁর জন্মদিন পালন করা হলো না। বরং তাঁকে যেতে হলো সাময়িক ডিটেনশনসেলে। এর আগেও পুলিশ তাঁকে দুই বার গ্রেফতার করেছিল।

গত বুধবার বুরাকভ যখন গাড়ি চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন, তখন পুলিশ তাঁকে ধরে। পুলিশের অভিযোগ, গাড়িতে বেআইনি মদ নিয়ে যাচ্ছেন সাংবাদিক। কিন্তু গাড়ি তল্লাশি করে কিছু পাওয়া যায়নি। তখন পুলিশ বলে, এটা চুরি করা গাড়ি। নম্বর জাল করা হয়েছে। বুরাকভ ২০১৩ সাল থেকে এই গাড়ি ব্যবহার করছেন। পুলিশ কোনো কথা শোনেনি। তাঁকে থানায় ধরে নিয়ে যাওয়া হয়।

কয়েক ঘণ্টা পরে পুলিশ তাঁকে ছেড়ে দেয়। কিন্তু থানা থেকে কয়েক পা যাওয়ার পরেই তাঁকে আবার গ্রেফতার করা হয়। বেলারুশের অ্যাসোসিয়েশন অফ জার্নালিস্টস-এর স্থানীয় প্রধান বরিস ডিডাব্লিউকে জানিয়েছেন, ”প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, বুরাকভ থানার সামনে দাঁড়ানো একজন মহিলার সঙ্গে তর্ক করছিলেন। তিনি চিৎকার করে বলেন, এ তো উস্কানি দেওয়া হচ্ছে। তারপরই তাঁকে আবার গ্রেফতার করা হয়।”

গত দুই মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বার গ্রেফতার হলেন বুরাকভ। গত ৮ মে তাঁকে গ্রেফতার করে ১০ দিন আটক করে রাখা হয়েছিল। ডিডাব্লিউ তাঁর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু পাওয়া যায়নি। তাঁর মোবাইল সুউচড অফ।বুরাকভ দিন কয়েক আগেই ডিডাব্লিউকে জানিয়েছিলেন, তাঁকে গ্রেফতার করা হতে পারে। কারণ, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে নিরপেক্ষ সাংবাদিকদের কাজে বাধা দিচ্ছে প্রশাসন।

ডিডাব্লিউ বুরাকভকে আটক করার তীব্র নিন্দাকরেছে। কর্তৃপক্ষের কাছে ডিডাব্লিউয়ের আবেদন, বেলারুশে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা বজায় রাখা হোক। ডিডাব্লিউয়ের এডিটর ইন চিফ এক বিবৃতিতে বলেছেন, ”আমাদের প্রতিনিধি বুরাকভকে ভয় দেখানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় পরিষ্কার, বেলারুশে সাংবাদিকদের কী কঠিন পরিস্থিতিতে কাজ করতে হচ্ছে।”

বুরাকভ একা নন, এর আগে সরকার একাধিক সাংবাদিক ও ব্লগারকে গ্রেফতার করেছে। অধিকাররক্ষা কর্মীরা ডিডাব্লিউকে বলেছেন, রোববারে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে নিরপেক্ষভাবে খবর করা সাংবাদিকদের টার্গেট করা হচ্ছে। ডিডাব্লিউয়ের এডিটর ইন চিফ বিবৃতিতে বলেছেন, ”সাংবাদিকদের শাস্তি দেওয়া হচ্ছে, তাঁদের কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না, এটা আমরা কখনই মানতে পারি না। আমরা কঠেোরভাবে এর নিন্দা করছি। বেলারুশের আধিকারিকদের কাছে আমার আবেদন, আপনারা সাংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতাকে গুরুত্ব দিন এবং সাংবাদিকদের বাধাহীনভাবে কাজ করতে দিন।”

বেলারুশের অ্যাসোসিয়েশন অফ জার্নালিস্টস-এর মতে, জানুয়ারি থেকে একশরও বেশি সাংবাদিককে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। মে থেকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকে ৮০ জনেরও বেশি সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ নিরপেক্ষ ও স্বাধীন সাংবাদিকদের বাধা দিতে বদ্ধপরিকর।

আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী রিপোর্টার্স উইথআউট বর্ডারসও বেলারুশে আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত সাংবাদিকদের স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছে। (ডিডাব্লিউ)