তিনদিন ব্যাপি শার্শা উপজেলায় “ক্লাইমেট স্মার্ট কৃষি প্রযুক্তি মেলা-২০২৪ উদ্বোধণ

প্রকাশিত: ৯:৩৫ অপরাহ্ণ , জুন ২৫, ২০২৪

উৎসাহ,উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে যশোর জেলার শার্শা উপজেলায় ২৫ জুন হতে ২৭জুন তিন দিনব্যাপী “ক্লাইমেট স্মার্ট কৃষি প্রযুক্তি মেলা”-২০২৪ এর আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার(২৫ জুন) সকাল ১০টায় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে শার্শা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে এবং ফিতা কেটে শুভ উদ্বোধনের ঘোষণা দেন-৮৫,যশোর-১ শার্শা আসনের এমপি শেখ আফিল উদ্দিন।

স্মার্ট প্রযুক্তির মাধ্যমে অত্র কৃষি অঞ্চলের জলবায়ু পরিবর্তন ও অভিযোজন প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রদর্শণের মাধ্যমে উপজেলা পরিষদ মেলার আয়োজন করা হয়। মেলায় স্থাপিত স্টলে নানা প্রযুক্তি প্রদর্শণ ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আদান প্রদানের মাধ্যমে কৃষকদেরকে সচেতন করা ও ক্লাইমেট স্মার্ট প্রযুক্তির ব্যবহারে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

উদ্বোধণ শেষে প্রধান অতিথি বলেন-“বাংলাদেশ একটি কৃষি প্রধান দেশ। কৃষিই দেশের মূল চালিকা শক্তি। কৃষির উন্নয়নে বর্তমান সরকার ব্যাপক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। বিনামূল্যে সার, বীজসহ বিভিন্ন কৃষি উপকরণ দেশের কৃষকদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, কৃষি মেলার আয়োজন করে কৃষকদের উৎসাহ প্রদান করলে কৃষকরা আরো বেশি অনুপ্রাণিত হবে। তিনি অত্র উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কর্তৃক এতো সুন্দর একটি মেলা আয়োজনের জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানান”।

এ উপলক্ষে শার্শা উপজেলা কমপ্লেক্স অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অত্র উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন এবং পৌর এলাকা হতে প্রায় ৫০০ শতাধিক কৃষক-কৃষানী উক্ত আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন।

নব-নির্বাচিত শার্শা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান-মোঃ সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কৃষি মেলার ঐ আলোচনায় এবং বীজ, সার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি শেখ আফিল উদ্দিন অংশ নেন।

এসময় মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন- নুসরাত ইয়াসমিন,সহকারী কমিশনার(ভূমি), দীপক কুমার সাহা(শার্শা উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা ও মেলা পরিচালণ কর্মকর্তা),নব- নির্বাচিত উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান-আব্দুর রহিম সরদার,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান-শামীমা আলম সালমা,বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সুমন ভক্ত। ১০নং শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান-কবির উদ্দিন আহম্মেদ তোতা সহ অন্যান্য ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, মেম্বর সকল এবং পৌর কমিশনারবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলার কৃষি অফিসার দীপক কুমার সাহা। তিনি বলেন আধুনিকভাবে চাষাবাদ করতে সরকার সব ধরনের সহায়তা করে যাচ্ছে। সুস্থভাবে বাঁচতে হলে নিরাপদ খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। এ জন্য বিষমুক্ত কৃষির কোনো বিকল্প নেই। এই মেলায় ১০টি স্টলে আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারসহ নিরাপদ ও বিষমুক্ত কৃষি পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দেওয়া হচ্ছে।

প্রধান অতিথি কৃষকদের উদ্দেশ্যে বলেন- “নগরায়নের ফলে বাংলাদেশে প্রতিনিয়ত কৃষিজমি কমছে। জনসংখ্যা বৃদ্ধিসহ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে খাদ্যশস্য উৎপাদন নানাভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তারপরও কৃষিতে ঈর্ষণীয় সাফল্য দেখিয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার।

এক সময় লাঙল-জোয়াল আর হালের বলদই ছিল চাষাবাদের মূল উপকরণ। কিন্তু সেই জায়গা এখন দখল করেছে বিভিন্ন আধুনিক প্রযুক্তি। জমি চাষ, বীজ বপন, নিড়ানি, কাটা, মাড়াই সবকিছুই করা হচ্ছে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে। ফলে কৃষিতে উৎপাদন বাড়ছে এবং কৃষকরাও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারে আগ্রহী হচ্ছেন।

শুধু গ্রাম নয়, শহরেও বিদ্যমান ফাঁকা জমিসহ বাড়ির আঙিনায় ও ছাদ বাগানে দেশীয় ফল ও সবজি উৎপাদনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন এমপি।

এ সময় তিনি বলেন,রাসায়নিক ব্যবস্থা হতে সরে এসে আমাদেরকে জৈবিক সার ব্যবহারে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে,এতে স্বাস্থ্য ঝুকি হতে নিজেরা রেহাই পাবো”।

Loading