অবাধ,সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনে আমতলী পৌর সভায় ঘটেছ নিরব ভোট বিপ্লব

প্রকাশিত: ১:০৪ অপরাহ্ণ , মার্চ ১০, ২০২৪

সাইফুল্লাহ নাসির,আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ

নজিরবিহীন অবাধ,সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হওয়া
বরগুনার আমতলী পৌরসভার নির্বাচনে পৌর বাসী ব্যালটের মাধ্যমে ঘটিয়েছেন নিরব ভোট বিপ্লব।পৌর বাসীর নিরব বিপ্লবে এ নির্বাচনে বে-সরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন মোবাইল প্রতীকের প্রার্থী মতিয়ার রহমান।এ নিয়ে তিনি টানা তিনবার আমতলী পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হলেন।

গতকাল শনিবার (৯ মার্চ) অনুষ্ঠিত এ নির্বাচন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণের পর রিটার্নিং অফিসার ভোটের ফল প্রকাশ করেন।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরপর অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে মতিয়ার রহমান এর বিপরীতে ছিলেন ক্ষমতার স্রোতে থাকা সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান নান্নু।তিনি ও অনুসারীদের প্রভাব ও প্রচারণার কাছে অপর প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান মেয়র মতিয়ার রহমান এর সমর্থকরা নানাভাবে চড়াই উৎরাইয়ের মধ্যে মধ্যে কোনঠাসা হয়ে প্রচার-প্রচারনা চালালেও সাধারণ পৌরবাসী উন্নয়ন ও আস্হার প্রতিক হিসেবে মতিয়ার রহমান এর পক্ষ ঘটিয়েছেন নিরব ভোট বিপ্লব।

তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতার
হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের গতকালের নির্বাচনে আমতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিয়ার রহমান (মোবাইল প্রতিকে) পেয়েছেন ৬ হাজার ৪৭৩ ভোট।তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নাজমুল আহসান খান নান্নু (হ্যাঙ্গার প্রতীকে) পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৭০ ভোট।

জানা যায়,১৯৯৮ সালের ১৫ অক্টোবর আমতলী পৌরসভা প্রতিষ্ঠা হয়। প্রতিষ্ঠাকালে পৌর প্রশাসক হিসেবে তৎকালীন আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৯ সালের ৬ মে নির্বাচনে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মোঃ আঃ ছত্তার মৃধা। ২০০৫ সালের ৩০ জুলাই দ্বিতীয় নির্বাচনে নির্বাচিত হন নাজমুল আহসান খান নান্নু।২০১১ সালের তৃতীয় দফা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচিত হন মোঃ মতিয়ার রহমান। সেই পথচলা শুরু থেকে ২০১৯ সালে নৌকা প্রতীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দ্বিতীয় দফায় নির্বাচিত হন মেয়র মোঃ মতিয়ার রহমান।গতকালের নির্বাচনে মতিয়ার রহমান বিজয়ী হয়ে টানা তৃতীয়বার মেয়র নির্বাচিত হয়ে হ্যাটট্টিক করেন।

Loading