ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পঞ্চগড়, তাপমাত্রা ৭.৬ ডিগ্রি

প্রকাশিত: ১১:২১ পূর্বাহ্ণ , জানুয়ারি ৩০, ২০২৪

গতকালের মতো আজও উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের সকালটি ছিল শ্বেতশুভ্র ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা। ঘনকুয়াশার সাথে হিমেল হাওয়া প্রবাহিত হওয়ায় কনকনে শীত বেশি অনুভূত হচ্ছে। তীব্র ঠান্ডার কারণে জেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয় আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত পাঠদান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

তেতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: রাসেল শাহ জানিয়েছেন, আজ মঙ্গলবার সকাল ছয়টায় তেতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

তীব্র ঠান্ডার কারণে নিম্নআয়ের লোকজন বেশি বিপাকে পড়েছেন। কাজে বের হতে না পারায় তারা পড়েছেন অর্থকষ্টে।

পঞ্চগড় আধুনিক হাসপাতালে তীব্র শীতের ও ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব বেড়েছে। শতাধিক শিশু ঠাণ্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

এদিকে, ঠাণ্ডায় কাপছে পুরো মৌলভীবাজার জেলা। বইছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। কয়দিন ধরে ৮ থেকে ১০ এর মধ্যে উঠানামা করছে তাপমাত্রা। রোদ উঠলে নেই তেজ।

আবহাওয়া অফিস জানায়, দিনের অধিকাংশ সময়ই ১২ ডিগ্রির মধ্যে থাকে তাপমাত্রা। রাতে ও সকালে নেমে আসে ১০ এর নিচে। রোদ উঠার পর কিছু সময়ের জন্য তাপমাত্রা ১৮ থেকে ২০ এর উপরে উঠে। এ অবস্থায় দিনের দীর্ঘ সময় পারদ নিচে থাকায় শীত অনুভূত হয় বেশি।

এদিকে এই কন কনে ঠান্ডায় চরম দুর্ভোগে রয়েছেন রেলওয়ে স্টেশনে ও খোলা আকাশের নিচে যারা রাতে ঘুমান। এই মুহূর্তে প্রয়োজন পর্যাপ্ত শীতবস্ত্র।

শীতে জবুথবু আরেক জেলা সিরাজগঞ্জ। উত্তরের হিমেল হাওয়া আর কুয়াশায় তাপমাত্রা কমে বেড়েছে দুর্ভোগ।

দু’দিন ধরে টাঙ্গাইলে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও কমেনি শীতের তীব্রতা। ঠান্ডার দাপটে স্থবিরতা নেমেছে সেখানকার জনজীবনে।

শৈতপ্রবাহ বইছে মৌলভীবাজারেও। কুয়াশার সাথে হিমেল বাতাসের আধিক্য থাকায় সবচেয়ে বেশি বিপাকে খেটে খাওয়া আর ছিন্নমূল মানুষ।

Loading