মেধা সম্পদের পরিচর্যার মাধ্যমে জাতীয় উন্নয়নে অংশীদার হওয়ার আহবান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ৯:১১ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ২৫, ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেধা সম্পদের পরিচর্যার মাধ্যমে জাতীয় উন্নয়নের অংশীদার হতে গবেষক, প্রযুক্তিবিদ, শিল্পপতি, ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আগামীকাল ২৬ এপ্রিল ‘বিশ্ব মেধাসম্পদ দিবস’ উপলক্ষ্যে আজ দেয়া এক বাণীতে তিনি বলেন, ‘বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও ২৬ এপ্রিল ‘বিশ্ব মেধাসম্পদ দিবস’ উদযাপন করা হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় মেধার বিকল্প নেই। সৃজনশীলতা ও মেধার বিকাশে নারীর ভূমিকা অগ্রগণ্য। তাই, দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘ওমেন এন্ড আইপি: এক্সেলেরেটিং ইনোভেশন এন্ড ক্রিয়েটিভিটি’ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ও সময়োপযোগী হয়েছে বলে আমি মনে করি।’

তিনি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে মেধাসম্পদের যথাযথ ব্যবহারের লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার বিগত ১৪ বছরে নানমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ পেটেন্ট আইন-২০২২ ইতোমধ্যে জাতীয় সংসদে পাশ হয়েছে। জাতীয় উদ্ভাবন ও মেধাসম্পদ নীতিমালা-২০১৮ প্রণয়ন করা হয়েছে। আমরা ট্রেডমার্ক আইন-২০০৯ সংশোধন করে ট্রেডমার্ক (সংশোধন) আইন-২০১৫ পাশ করেছি। এছাড়া ট্রেডমার্ক বিধিমালা-২০১৫, ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য (নিবন্ধন ও সুরক্ষা) আইন-২০১৩ ও ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য (নিবন্ধন ও সুরক্ষা) বিধিমালা-২০১৫ পাশ হয়েছে। জামদানি, ইলিশ, ঢাকাই মসলিনসহ মোট ১১টি পণ্য ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত হয়েছে। বগুড়ার দই, বাংলাদেশের শীতলপাটি, শেরপুরের তুলশীমালা ধান, চাপাইনবাবগঞ্জের আশ্বিনা ও চাপাইনবাবগঞ্জের ল্যাংড়া আম ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য হিসেবে নিবন্ধনের জন্য জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া ১৯টি পণ্য নিবন্ধনের জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা বাংলাদেশ শিল্প নকশা আইন-২০২৩ এর খসড়া প্রণয়ন করেছি।’

তিনি বলেন, দেশের বৃহৎ, মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্পের উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকগণ যাতে তাদের উদ্ভাবনী কার্যক্রমসমূহ রেজিস্ট্রারভুক্ত ও এর অধিকার সংরক্ষণ করতে পারেন সে বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) দেশের মেধাসম্পদ সুরক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

গবেষণা, উদ্ভাবন ও সৃজনশীলতার বিকাশে দেশের নারীসমাজ আরো এগিয়ে আসবেন বলে প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বিশ্ব মেধাসম্পদ দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সাফল্য কামনা করেন।

Loading