মিয়ানমারে সামরিক বিমান হামলায় ৭ জন নিহত, আহত ৩০

প্রকাশিত: ৯:১৩ পূর্বাহ্ণ , জানুয়ারি ২০, ২০২৩

মিয়ানমারে সশস্ত্র বাহিনীর বিমান হামলায় অন্তত সাত জন বেসামরিক নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার গভীর রাতে সাগাইং অঞ্চলের কাথা শহরে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

থাইল্যান্ড ভিত্তিক বার্মিজ সংবাদ মাধ্যম দ্যা ইরাবদির একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুটি সামরিক জেট প্রায় ১ হাজার ৮০০ ঘরবাড়ি রয়েছে এমন একটি বড় গ্রামে বোমা হামলায় চালায় সামরিক বাহিনী। এতে ঘটনাস্থলেই সাত জন বেসামরিক লোক মারা যান এবং বেশ কয়েক আহত হন।

কাথা-পিপলস ডিফেন্স ফোর্সের মতে, কয়েক কিলোমিটার দূরে প্রতিরোধ বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে তার সৈন্যদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার পরে জান্তা মোয়েতার গ্রামে বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে বোমা হামলা চালায়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা যায় একটি পুড়ে যাওয়া ঘরের মধ্যে পোড়া মৃতদেহ পড়ে আছে। স্থানীয়রা বলেছেন যে বোমা হামলায় কমপক্ষে ৩০ জন বাসিন্দা আহত হয়েছে, যা ইঙ্গিত করে যে বেসামরিক লোকেরা লক্ষ্যবস্তু ছিল।

কাথা-পিপলস ডিফেন্স ফোর্সের মতে “যদি বোমাগুলি সংঘর্ষের কাছাকাছি অবস্থিত গ্রামের প্রান্তে আঘাত করত, আমরা বুঝতে পারতাম জেটগুলি লক্ষ্যবস্তু মিস করেছে। কিন্তু বোমাগুলি আসলে সংঘর্ষ থেকে এক মাইল দূরে অবস্থিত একটি প্রান্তে আঘাত করেছিল, তাই তারা ইচ্ছাকৃতভাবে বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে আক্রমণ করেছিল,”

বৃহস্পতিবার সকালেও ওই এলাকায় জান্তা সেনা ও প্রতিরোধ বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে।

মোয়েতার গ্রামে সাত হাজারের বেশি মানুষের বাস। তবে এই হামলার পর তাদের বেশিরভাগই গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে।

সামরিক সরকার জানুয়ারির শুরু থেকেই সাগাইং অঞ্চল এবং চিন, কাচিন এবং কারেন রাজ্যে বেসামরিক এবং প্রতিরোধ লক্ষ্যবস্তুতে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

Loading