সরকারের প্রণোদনা পেতে চায় বেসিক ট্রেড প্রতিষ্ঠানসমূহ

প্রকাশিত: ১:১৮ অপরাহ্ণ , জুলাই ১১, ২০২০

করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের ঘোষিত ১০৫ কোটি টাকার এখনও কোন প্রণোদনা পায়নি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের বেসিক ট্রেডের আওতাধীন প্রতিষ্ঠানগুলো।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের বেসিক ট্রেডের আওতাধীন কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কোর্সসহ সারাদেশে ১০৫টি ট্রেডে  প্রায় সাড়ে তিন হাজার প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

যাদের অবদানে আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ সেই উদ্যোক্তাদের প্রতি সরকারের চরম অবহেলা। চলমান পরিস্থিতিতে তারা কর্মহীন হয়ে চরম আর্থিক সংকটে দিন কাটাচ্ছে তাদের প্রতি কোন সদয় দৃষ্টি নেই কারো।

প্রণোদনা পেতে আবেদন করেছে ‘বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভেলপমেন্ট ফোরাম’। ফোরাম এর  আহ্বায়ক নিত্যানন্দ সরকার ও সদস্য সচিব তোফাজ্জল হোসেনের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী এ প্রতিষ্ঠানগুলো বর্তমান পরিস্থিতিতে হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। ফলে সরকারি প্রণোদনা ছাড়া এ সংকটময় পরিস্থিতিতে তাদের টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে। হাজার হাজার কর্মীর জীবনে চরম দুর্দশা নেমে এসেছে।

ফোরাম দাবি করে, কর্মসংস্থান তৈরি ক্ষেত্রে তাদের ভূমিকা অগ্রগন্য। তাদের প্রতিষ্ঠান থেকে থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশে বিদেশে ব্যাপক কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে।অথচ আজ   তারা নিরুপায়।

শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায়কৃত বেতন দিয়েই প্রতিষ্ঠানের ভবন ভাড়া, ইউটিলিটি বিল এবং শিক্ষক এবং কর্মকর্তা/কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়। কিন্তু দুর্যোগকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টিউশন ফি আদায় করতে পারছে না। প্রতিষ্ঠান গুলোতে স্বল্প বেতনে কর্মরত ৫২ হাজারের অধিক প্রশিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী আর্থিক সংকটে দিন যাপন করছে এবং সামাজিক সম্মান ও অবস্থানের কারণে কারও দ্বারস্থ হতেও পারছে না।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ওয়েব সাইটে চেয়ারম্যানের মোবাইল নাম্বার না থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।