রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা নিয়ন্ত্রণে সফলতার দাবি

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ , জুলাই ৮, ২০২০

মে মাসে প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ার পর জনবহুল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা ছিল৷ তবে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ায় তা সফলভাবে ঠেকানো গেছে বলে মনে করছে কর্তৃপক্ষ৷মে মাস থেকে এখন পর্যন্ত ক্যাম্পের ৭২৪ জন রোহিঙ্গাকে পরীক্ষা করা হয়েছে৷ এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৫৪ জন৷ এখন পর্যন্ত ভাইরাসটি আক্রান্ত হয়ে পাঁচজন মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের শরণার্থী বিষয়ক কমিশনার মাহবুব আলম তালুকদার৷ বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, ‘‘আমরা সফলতার সাথে প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে পেরেছি৷’’

গোটা কক্সবাজার জেলায় ২৪ লাখ মানুষের বাস৷ তার মধ্যে দুই হাজার ৭৭৬ জনকে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে৷ মারা গেছেন ৬০ জন, জানান মাহবুব আলম তালুকদার৷রোহিঙ্গাদের মধ্যে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ার শুরুর পর্যায়েই ত্রিশটির বেশি ক্যাম্পে লকডাউন কার্যকর করা হয়৷ রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পের বাইরে যাওয়ার উপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়৷ পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মানতে কৃর্তৃপক্ষ ক্যাম্পে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছে বলে জানান কুতুপালং আশ্রয়কেন্দ্রের শিক্ষক মোহাম্মদ শাফি৷ এই সময়ে ক্যাম্পের বেশিরভাগ দোকান বন্ধ রাখা হয়েছে৷ বাহির থেকে সহায়তা কর্মীদের ক্যাম্পে প্রবেশেও নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়৷ রোহিঙ্গাদের মধ্যে সাবানও বিতরণ করেছে কর্তৃপক্ষ৷

তবে গত কয়েক সপ্তাহে অনেকে মৌসুমি ফ্লু, মাথা ও শরীর ব্যথা আর ডায়রিয়ায় ভুগেছেন বলে জানিয়েছেন শাফি৷

‘‘বেশিরভাগই হাসপাতালে যেতে পারেননি৷ তার বদলে তারা (ক্যাম্পের) স্থানীয় ফার্মেসি থেকে ওষুধ নিয়েছেন,’’ বলেন তিনি৷ ক্যাম্পে পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়নি এবং সেখানে যারা মারা গেছেন তাদেরকেও পরীক্ষার আওতায় আনা হয়নি৷ DW