শরীরে গরম পানি ঢেলে ও পিটিয়ে সৎ মাকে হত্যা

প্রকাশিত: ২:২৬ অপরাহ্ণ , জুলাই ৫, ২০২০

গোপালগঞ্জে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পিটিয়ে, শরীরে গরম পানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে সৎমা কুলসুম বেগমকে (৬০) নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।
কোটালীপাড়া উপজেলার রাধাগঞ্জ ইউনিয়নের রাজিন্দারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুলসুম বেগম খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
এ ঘটনায় গতকাল রাতে কোটালীপাড়ায় থানায় সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে চার নারীকে গ্রেপ্তার করেছে। কুলসুম বেগম কোটালীপাড়া উপজেলার রাজিন্দারপাড় গ্রামের সবর আলী সিকদারের দ্বিতীয় স্ত্রী।
কুলসুম বেগমের ভাই স্কুল শিক্ষক কালাম ফকির জানান, সৎ ছেলেদের সাথে জমিজমা নিয়ে কুলসুমের বিরোধ চলছিল। কুলসুমকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সৎ ছেলে রিপন সিকদার, আলাউদ্দিন সিকদার ও তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম এবং মেয়ে লিমা সিকদার কুলসুমের ওপর হামলা করে। তাকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে গায়ে গরমপানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেয়। কুলসুমের ২ ছেলে ও ছেলের বউ তাকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে এলে তাদেরও মারপিট করা হয়। পরে তাদের শরীরেও গরমপানি ঢেলে ও মরিচেরগুঁড়া ছিটিয়ে দেয়া হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুলসুমকে উদ্ধার করে প্রথমে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল থেকে বিকেলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত সাড়ে ৮টার তিনি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, এ ঘটনায় নিহতের ভাই কালাম ফকির শনিবার রাতে ৭ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত ৪ নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।