চিকিৎসার জন্য কথায় কথায় বিদেশ যাওয়া উচিত না

প্রকাশিত: ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ , জুন ৩০, ২০২২

প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, সবাই দেশি পণ্য ব্যবহার করুন, দেশি পণ্য ব্যবহারের দিকে নজর দিন। দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার অনেক উন্নয়ন হয়েছে। কথায় কথায় চিকিৎসার জন্য বিদেশে ছুটে যাওয়া উচিত না।
বুধবার (৩০ মে) জাতীয় সংসদে ২০২২-২৩ অর্থ বছরের বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুদ্রাস্ফীতি যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে তার ব্যবস্থা আমরা নিচ্ছি। প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সমন্বয়ের জন্য টাকার মূল্যমান পুননির্ধারণ করা হচ্ছে। এটা একটি চলমান প্রক্রিয়া।

তিনি বলেন, দেশি পণ্য ব্যবহারের দিকে নজর দিতে হবে। দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে কথায় কথায় চিকিৎসার জন্য বিদেশে ছুটে যাওয়াকেও নিরুৎসাহিত করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চলমান করোনা মহামারির ধাক্কা এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বৈশ্বিক সরবরাহ শৃঙ্খল ব্যাহত হওয়ায় আমদানিভিত্তিক মূল্যস্ফীতির কারণে দেশের বর্তমান মূল্যস্ফীতির যে উর্ধ্বগতি, তা নিয়ন্ত্রণে রাখাকে প্রাধান্য দিয়েই এবার বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, মহামারি আমাদের অর্থনীতিতে বিরাট ক্ষতি সাধন করেছে। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি এই মহামারির ক্ষতি সামলে সমৃদ্ধ উন্নয়নের পথে ফিরে আসার। আর সেক্ষেত্রেও আমরা সাফল্য অর্জন করে বড় একটি বাজেটও দিতে পেরেছি। আমরা ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার একটি বাজেট উপস্থাপন করতে সক্ষম হয়েছি, যা অনেক দেশই পারেনি। কাজেই আমি মনে করি আওয়ামী লীগ সরকারের এটি বিরাট সাফল্য।

শেখ হাসিনা বলেন, শত বাধা ও চাপের মুখে পড়লেও আমরা দৃঢ়ভাবে সামনে এগিয়ে যাচ্ছি। অনেক প্রতিকূল অবস্থায় আমাদের এগোতে হচ্ছে। যেখানে উন্নত দেশগুলো হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে আমরা আমাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নের গতি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি আরও জানান, দেশ-বিদেশের সকল বাধা বিপত্তি অতিক্রম করেই আমরা অসম্ভবকে সম্ভবে পরিণত করছি। তার মূলে রয়েছে এদেশের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ, যাদের একটা আলাদা শক্তি রয়েছে। শুধু যদি একবার তারা অনুধাবন করতে পারে, তাহলেই সেই শক্তিটা বোঝা যায়, যেটা পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রেও হয়েছে।

‘জাতির পিতার ডাকে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়ে একদা এ দেশের মানুষই বিজয় ছিনিয়ে এনেছিল। তারা জীবন বিলিয়ে দিয়েছিল। আর সেই মানুষের দেশ আমাদের বাংলাদেশ। কাজেই সেই মানুষকে নিয়েই আমাদের এগোতে হবে। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস এবং যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেও সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়েই আমরা এগিয়ে যাব ইনশাল্লাহ।’

তিনি বলেন, ২০২২-২৩ অর্থ বছরের জন্য যে বাজেট জাতীয় সংসদে পেশ করা হয়েছে, আমি মনে করি জনগণের সর্বাত্মক সহযোগিতায় আমরা তা সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে পারবো।

শেখ হাসিনা বলেন, কোভিড-১৯ এর আরেকটি ঢেউ এসেছে। চতুর্থ ঢেউ। করোনাভাইরাস আমরা সাহসের সঙ্গে মোকাবেলা করেছি। সবাইকে বলবো স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে। করোনা মোকাবেলায় আমরা যে সাফল্য এনেছি সেটা ধরে রাখতে হবে।

তিনি জানান, আমাদের রফতানি বেড়েছে। আমরা ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি রফতানি করতে পেরেছি। মহামারি মোকাবেলা করেও ৫০ বিলিয়নের ক্লাবে প্রবেশ করতে পেরেছি।