পদ্মাসেতু

জিডিপিতে আড়াই শতাংশ প্রবৃদ্ধির আশা

প্রকাশিত: ৮:২৪ পূর্বাহ্ণ , জুন ২২, ২০২২

পদ্মাসেতুর কারণে জিডিপিতে আড়াই শতাংশ পর্যন্ত প্রবৃদ্ধি হতে পারে বলে আশা করছেন অর্থনীতিবিদরা। অন্যদিকে, সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও ব্যবসায়ী নেতারা বলছেন, উন্নত সড়ক ও রেল-যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও বাণিজ্য সম্প্রসারণের মাধ্যমে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল হয়ে উঠবে দেশের অন্যতম অর্থনৈতিক করিডোর।

২৫ জুন খুলছে স্বপ্নের পদ্মাসেতু। পরের দিন শুরু হবে যান চলাচল। সারাদেশের সাথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের।

এমন প্রেক্ষাপটে রাজধানীর একটি হোটেলে পদ্মাসেতুর অর্থনৈতিক গুরুত্ব নিয়ে এক গোলটেবিল আলোচনায় বসেন সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী, উপদেষ্টা, অর্থনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী নেতারা।

এসময় পদ্মা সেতু নিয়ে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রের কথা আবারও স্মরণ করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এমপি।

সেইসঙ্গে স্বপ্নের এই সেতু কেবল ২১ জেলায় নয়, সারাদেশের ব্যবসায়-বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করছেন ব্যবসায়ী নেতারা।

অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলছেন, বিনিয়োগের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করা গেলে বছরে অন্তত ১০ বিলিয়ন ডলার যোগ হবে জিডিপিতে।

অর্থনৈতিক গুরুত্বের পাশাপাশি বাংলাদেশের অদম্য সাহস ও সক্ষমতার বিষয়টিও বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেছে পদ্মাসেতু, বলেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

পদ্মা সেতুর মাধ্যমে ২১ জেলায় ১৭টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল যুক্ত হলে টোলের টাকার চেয়ে করের টাকা বেশি আসবে বলেও জানান বক্তারা।